Home বিনোদন মুক্তির প্রথম দিনে কত আয় করলো ‘বিক্রম ভেধা’

মুক্তির প্রথম দিনে কত আয় করলো ‘বিক্রম ভেধা’

by বাংলা টুডে ডেস্ক
৩৯ views

বিনোদন ডেস্ক :

বহুল প্রতীক্ষিত বলিউড সিনেমা ‘বিক্রম ভেধা’ মুক্তি পেয়েছে গত শুক্রবার। সিনেমাটিতে একজন গ্যাংস্টার চরিত্রে হৃতিক রোশন এবং একজন পুলিশ কর্মকর্তা চরিত্রে সাইফ আলি খান অভিনয় করেছেন।

মুক্তির প্রথম দিনই সিনেমাটি বক্স অফিসে বেশ সাড়া ফেলেছে। যেমনটা প্রত্যাশা ছিল, তেমনটা পূরণ না হলেও ‘বিক্রম ভেধা’ গত শুক্রবার মুক্তির প্রথম দিন ভারতে প্রায় ১০ থেকে ১১ কোটি রুপি আয় করেছে। তবে একই দিনে মুক্তি পাওয়া পুষ্কর-গায়ত্রী পরিচালনায় মণি রতœমের বহুল প্রতীক্ষিত পিরিয়ড ড্রামা ‘পন্নিয়ান সেলভান’ এর সঙ্গে বক্স অফিসে বেশ লড়াই করতে হয়েছে সিনেমাটিকে। বক্স অফিস ইন্ডিয়া ডটকমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, মহারাষ্ট্র এবং গুজরাটের মতো মার্কেটে ‘বিক্রম ভেধা’ তেমন ভালো পারফর্ম করতে পারেনি। এই দুটি বিশাল দর্শক বাজারে সিনেমাটির শুরুটা অনেকটা ‘শামশেরা’ এবং ‘স¤্রাট পৃথ্বীরাজ’ সিনেমার মতোই হয়েছে যা প্রত্যাশা পূরন করতে পারেনি।

তবে ‘বিক্রম ভেধা’ সমালোচকদের কাছ থেকে ইতিবাচক পর্যালোচনা পেয়েছে। অনেকের দাবি, সিনেমাটি দর্শকদের আরো বেশি পছন্দ হবে। যারা আসল ‘বিক্রম ভেধা’ দেখেনি তারা এটিকে আসলের সঙ্গে তুলনা করবে না। এ ক্ষেত্রে সিনেমাটি আলাদা একটি ভালোলাগা তৈরি করবে। ভারতীয় গণমাধ্যম ‘হিন্দুস্তান টাইমস’ সিনেমাটির রিভিউতে লিখেছে, “বিক্রম ভেধা হল একটি কাল্ট ক্লাসিকের নতুনকরণ এবং ভিন্ন আঙ্গিকে তৈরি একটি রিমেক।

সিনেমাটির আকার ও নির্মাণশৈলী এবং এটি যে তারকা শক্তি বহন করে তা বিবেচনা করলে এই সমস্ত পরিবর্তন হওয়া প্রয়োজন ছিল। রিমেকটি অরিজিনাল থেকে কিছু অংশ বাদ দিয়ে নতুন স্টাইলে তৈরি করা হয়েছে, যা সিনেমাটিকে আরো ভালো করে তুলতে পারে। ’এদিকে সিনেমায় সাইফ আলি খানের সঙ্গে কাজ করার প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে হৃতিক পিটিআইকে বলেন, “আমার ২২ বছরের ক্যারিয়ারে প্রথমবার আমি নিজেকে রক্ষা করার মতো ব্যাপার অনুভব করেছি।

আমি অনুভব করছি যে আমাকে খুব বাস্তবিক হতে হবে। কারণ আমি এমন একজনের বিপরীতে অভিনয় করেছি যিনি সবচেয়ে বাস্তবিক একজন অভিনেতা। ’’ সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস

আরো পড়ুন

সম্পাদক: শুভ্র মেহেদী

মোবাইল: ০১৯৮৫৮২৭৮৩০
ই-মেইল: jamalpur.banglatoday.2022@gmail.com

মিডিয়া ক্যাম্পাস, পৌরসুপার মার্কেট (২য় তলা), রানীগঞ্জ বাজার, তমালতলা, জামালপুর।

Developed by Media Text Communications