Home বিনোদন ‘হাওয়া’ নতুন রেকর্ড গড়লো উত্তর আমেরিকায়

‘হাওয়া’ নতুন রেকর্ড গড়লো উত্তর আমেরিকায়

by বাংলা টুডে ডেস্ক
views

বিনোদন ডেস্ক:

প্রথম কোনো বাংলাদেশী সিনেমা হিসাবে রেকর্ড টানা চতুর্থ সপ্তাহে আমেরিকায় চলছে মেজবাউর রহমান সুমনের ‘হাওয়া’। কানাডায়ও ভাগ বসিয়েছে অতীতের ‘আয়নাবাজি’ ও ‘দেবী’র চতুর্থ সপ্তাহের রেকর্ডে। নিশ্চিত করেছেন আন্তর্জাতিক পরিবেশক স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো এর প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ অলিউল্লাহ সজীব।

সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে আমেরিকার শোকেইস চেইনে নিউ ইয়র্ক এর জ্যামাইকা মাল্টিপ্লেক্স সিনেমাস থিয়েটারে টানা চতুর্থ সপ্তাহেও বইছে ‘হাওয়া’। এর আগে রেকর্ড টানা তৃতীয় সপ্তাহ পর্যন্ত এই থিয়েটারে চলেছে ‘দেবী’। অবশ্য ‘দেবী’ এর আয় এই থিয়েটারে দ্বিতীয় সপ্তাহেই ছাড়িয়েছে ‘হাওয়া’। ৭৩ থিয়েটারে মুক্তির পর পুরো আমেরিকায় আয় এর দিক দিয়ে বাংলাদেশী সকল সিনেমার রেকর্ড মাত্র চারদিনেই ভেঙেছে ‘হাওয়া’।

একই দিন থেকে কানাডায় সিনেপ্লেক্স এন্টারটেইনমেন্ট চেইনে অন্টারিও প্রভিন্স এর টরন্টো শহরের সিনেপ্লেক্স এগলিংটন টাউন সেন্টার থিয়েটারে টানা চার সপ্তাহ চলছে ‘হাওয়া’। এর আগে এই থিয়েটারেই টানা চার সপ্তাহ চলেছিলো ‘আয়নাবাজি’ ও ‘দেবী’। আর এই সপ্তাহে টরন্টো এর সিনেপ্লেক্স মর্নিং সাইড সিনেমাস থিয়েটারে টানা তৃতীয় সপ্তাহ চলছে ‘হাওয়া’।

কানাডায়‘আয়নাবাজি’ মুক্তি পেয়েছিলো চারটি আর ‘দেবী’ ৬টি হলে। আর ১৩টি থিয়েটারে মুক্তির প্রথম চারদিনেই আগের আয়ের রেকর্ড ভেঙেছে‘হাওয়া’। ‘স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো’র পরিবেশনায় সান মিউজিক অ্যান্ড মোশন পিকচার্স লিমিটেড প্রযোজিত এবং ফেইসকার্ড প্রোডাকশন নির্মিত মেজবাউর রহমান সুমন এর সিনেমা ‘হাওয়া’ প্রথম সপ্তাহে কানাডায় ১৩টি এবং আমেরিকায় ৭৩টি মোট ৮৬ হলে মুক্তি পায়। দ্বিতীয় সপ্তাহে উত্তর আমেরিকায় ৩৫টি থিয়েটারে চলেছে হাওয়া।

তৃতীয় সপ্তাহে চলেছে ১৩টি থিয়েটারে। আর সগৌরবে চতুর্থ সপ্তাহ চলছে ৩টি থিয়েটারে। সব মিলিয়ে উত্তর আমেরিকায় অবিশ্বাস্য ১৩৭ সপ্তাহ উদযাপন করছে ‘হাওয়া’। মুক্তির প্রথম চারদিনে লেবার ডে উইকেন্ড-এ বক্সঅফিসে ঝড় তুলে বক্স অফিস কমস্কোর এর ইউএস টপচার্টে ২৭ নম্বরে এসেছে ‘হাওয়া’।

আরো পড়ুন

সম্পাদক: শুভ্র মেহেদী

মোবাইল: ০১৯৮৫৮২৭৮৩০
ই-মেইল: jamalpur.banglatoday.2022@gmail.com

মিডিয়া ক্যাম্পাস, পৌরসুপার মার্কেট (২য় তলা), রানীগঞ্জ বাজার, তমালতলা, জামালপুর।

Developed by Media Text Communications