rockland bd

ঈদগাহ ময়দানে আইয়ুব বাচ্চুর প্রথম জানাজায় জনতার ঢল

0

ডেস্ক প্রতিবেদন, ঢাকা-


কিংবদন্তী ব্যান্ড সংগীতশিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর প্রথম নামাজে জানাজা জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ শুক্রবার দুপুর ২টা ৯ মিনিটে আত্মীয়স্বজন, বন্ধু, সহকর্মী ও হাজার হাজার ভক্তের উপস্থিতে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে সকাল ১০টা ২৫ মিনিটের দিকে তার মরদেহ শহীদ মিনারে নেয়া হয়। সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধার জন্য মরদেহ শহীদ মিনারে রাখা হয় দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত। দেড়টার পর তার মরদেহ ঈদগাহ ময়দানে নেয়া হয়।

প্রিয় এই শিল্পীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে সকাল থেকেই কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে জড়ো হতে থাকেন সর্বস্তরের মানুষ। তার মরদেহ দেখে অনেকেই কান্নায় ভেঙে পড়েন।

বাচ্চুর মরদেহে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরসহ সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক অঙ্গনের মানুষ। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা জানানোর জন্য এ আয়োজন করেছে।

তার ছেলে ও মেয়ে বিদেশ থেকে ফেরার পর শনিবার চট্টগ্রামে মায়ের কবরের পাশে সমাহিত করা হবে জনপ্রিয় এই সংগীতশিল্পীকে।

বৃহস্পতিবার সকালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর মগবাজারে নিজ বাসভবনে মারা যান আইয়ুব বাচ্চু। তার বয়স হয়েছিল ৫৬ বছর।

এর আগে ২০০৯ সালে তিনি হার্টে রিং পরিয়েছিলেন বলেও জানান ডাঃ মো. নাজিম উদ্দিন।

১৯৬২ সালের ১৬ আগস্ট চট্টগ্রামে জন্মগ্রহণকারী আইয়ুব বাচ্চু দেশের পপ সংগীতকে জনপ্রিয় করে তোলার ক্ষেত্রে অন্যতম পথপ্রদর্শক ছিলেন। তিনি একাধারে গায়ক, লিড গিটারিস্ট, গীতিকার, সুরকার ও প্লেব্যাক শিল্পী ছিলেন। বাচ্চু জনপ্রিয় সংগীত ব্যান্ড ‘এলআরবি’র কর্ণধার ছিলেন।

‘হারানো বিকেলের গল্প’ গানের মধ্য দিয়ে সংগীতজগতে আইয়ুব বাচ্চুর ব্যতিক্রমী দরাজ কণ্ঠের যাত্রা শুরু হয়।

১৯৮৬ সালে তার প্রথম মিউজিক অ্যালবাম ‘রক্ত গোলাপ’ প্রকাশিত হয়। দ্বিতীয় অ্যালবাম ‘ময়না’ বিপুল জনপ্রিয়তা পায়। ১৯৯৫ সালে তৃতীয় অ্যালবাম ‘কষ্ট’ প্রকাশের পর শ্রোতাদের হৃদয় জয় করে নেন আইয়ুব বাচ্চু। সুপারহিট হয় অ্যালবামটির ‘কষ্ট পেতে ভালোবাসি’ গানটি।

মূলত রক সংগীতশিল্পী হলেও তিনি আধুনিক, ক্লাসিক ও ফোক সংগীতেও সমান পারদর্শী ছিলেন। হৃদয়স্পর্শী গানের মাধ্যমে দেশের হার্টথ্রব সংগীত তারকায় পরিণত হন তিনি।

১০ বছর ‘সোলস’ ব্যান্ডের সাথে থাকার পর ১৯৯১ সালে আত্মপ্রকাশ ঘটে আইয়ুবের নিজের ব্যান্ড ‘এলআরবি’র। সেখানে তিনি লিড গিটারিস্ট ও ভোকাল ছিলেন।

বাংলাটুডে২৪/আর এইচ

Comments are closed.