rockland bd

জিপিএ-৫ প্রাপ্তরা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষায় ফেল!

0

বাংলাটুডে২৪ ডেস্ক :
দেশের জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরিক্ষার নূন্যতম নম্বর তুলতে পারছে না। মাধ্যমিকে ও উচ্চমাধ্যমিকে মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত না হওয়ার ফলে এমন হতাশাজনক অবনতি বলে মনে করছেন শিক্ষাবিদরা। এ সংকট থেকে উত্তরণের জন্য শিক্ষার্থীদের বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় দক্ষ করে গড়ে তুলতে হবে বলে মনে করছেন তারা।
মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে জিপিএ-৫ এর রেকর্ড গড়ার প্রতিযোগিতা চারিদিকে। অথচ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাওয়া হাজার হাজার শিক্ষার্থী বাংলা ও ইংরেজিতে নূন্যতম পাস নম্বর তুলতে পারছে না।
চলতি বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ ইউনিটের পরীক্ষায় সর্বোচ্চ সংখ্যক ফেলের রেকর্ড হয়েছে। পাস করেছে মাত্র ৫.৫২ ভাগ শিক্ষার্থী। এক্ষেত্রে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ে মানসম্পন্ন শিক্ষা নিশ্চিত করতে না পারলে সহসায় এমন বিপর্যয় কাটবে না বলে মত দিয়েছেন শিক্ষাবিদরা।
শিক্ষাবিদ অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ার বলেন, মাধ্যমিক উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে লেখাপড়ার মান সঠিক নয়। পরীক্ষা পদ্ধতিও ঠিক নয়। পরিক্ষার খাতা মূল্যায়নের পদ্ধতিও ঠিক নয়।
জ্ঞানার্জনের চেয়ে ভাল জিপিএ প্রাপ্তিকে বেশি উৎসাহ দেয়ার প্রবণতা দেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে দীর্ঘমেয়াদী সংকটের দিকে নিয়ে যাচ্ছে বলে মত শিক্ষাবিদদের। শিক্ষাবিদ রাশেদা কে চৌধুরী বলেন, জ্ঞান কেন্দ্রীককা থেকে আমরা পরীক্ষা কেন্দ্রীকতার দিকে ঝুঁকে পড়ছি। যেমন শিক্ষার্থী, তেমনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান-শিক্ষক, আছে অভিভাবকও। সবাই ছুটছে পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাওয়ার প্রত্যাশায়।
সংকট থেকে উত্তরণে শিক্ষার্থীদের ভাষা শিক্ষার দিকে অধিক মনোযোগী হবার পরামর্শ দিলেন ঢাকা বিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকের।
সংকট থেকে উত্তরণে সরকারকে আত্মতুষ্টি থেকে বের হয়ে এসে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষার মান যাচাই করার তাগিদ শিক্ষা বিশেষজ্ঞদের।
সূত্র: সময় টিভি।

Comments are closed.