rockland bd

সেই মুশফিক-মিঠুনে জয়ের রূপকথা, ফাইনালে বাংলাদেশ

0

ঢাকা, ডেস্ক প্রতিবেদন-


পাকিস্তানের সঙ্গে বাঁচা-মরার লড়ইয়ে সাকিব, তামিমকে ছাড়াই খেলতে নামে বাংলাদেশ। একাদশে আসে চমক। কিন্তু সেটা যে বুমেরাং হতে যাচ্ছিল! শুরুতেই শ্রীলংকার সেই ম্যাচের মতই ৩ উইকেট হারিয়ে যেন খেই হারিয়ে ফেলে বাংলাদেশ। এরপর বাকিটা ইতিহাস।

মুশফিক ও মিঠুনের ১৪৪ রানের অনবদ্য জুটি ফের টাইগারদের আশার ঝলক দেখায়। মুশফিকুর রহিম ও মোহাম্মাদ মিঠুনের ব্যাটিংয়ের পর দলের ফিল্ডিং ও বোলিং নৈপুন্যে পাকিস্তানকে ৩৭ রানে হারিয়ে এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠে যায় বাংলাদেশ।

ভারতের বিপক্ষে বাজেভাবে হারার পর আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের বিপক্ষে টানা দ্বিতীয় জয়ে এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠল মাশরাফিরা। শুক্রবার ফাইনালে ভারতের মুখোমুখি হবে তারা। পাকিস্তানের ইনিংসে শোয়েব মালিক-ইমাম-উল-হক এবং ইমাম-উল-হক ও আসিফ আলি দুই বড় জুটি বাংলাদেশ শিবিরে কিছুটা সময় ভিতির সঞ্চার করলেও মুস্তাফিজ, মাহমুদুল্লাহ ও মেহেদীদের বৌলিং নৈপুন্যে ঘুরে দাঁড়ায় টাইগাররা।

এর আগে বুধবার আবু ধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে অলিখিত সেমিফাইনালে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে পাকিস্তানকে ২৪০ রানের টার্গেট দেয় বাংলাদেশ। দলের পক্ষে মুশফিক সর্বোচ্চ ৯৯ রান করেন। এছাড়া মোহাম্মাদ মিঠুন ৬০ এবং মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ২৫ রান করেন।

পাকিস্তানের পক্ষে জুনায়েদ খান ৪টি, শাহেন শাহ আফ্রিদি এবং হাসান আলী ২টি করে ও শাদাব খান ১টি উইকেট লাভ করেন।আগের ম্যাচগুলোর মতো আজও ব্যর্থ টাইগারদের ওপেনিং জুটি। একাদশে সুযোগ পাওয়া সৌম্য সরকার রানের খাতা খোলার আগেই জুনায়েদ খানের বলে সাজঘরে ফেরেন।

দ্রুতই ফিরে যান এশিয়া কাপে দ্বিতীয়বারের মতো একাদশে সুযোগ পাওয়া মুমিনুল হক। মাত্র ৫ রান করে শাহেন শাহ আফ্রিদির বলে বোল্ড হন তিনি। দলীয় ১২ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৬ রানে লিটন দাস আউট হলে চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ। সেখান থেকে দলকে টেনে তোলেন মুশফিকুর রহিম ও মিঠুন।

দুজনে মিলে ১৪৪ রানের জুটি গড়েন। এরপর ৮৪ বলে ৪টি চারের সাহায্যে ৬০ রান করে আউট হন মিঠুন। আগের ম্যাচে দুর্দান্ত খেলা ইমরুল কায়েস আজ ব্যাট হাতে তেমন কিছু করে দেখাতে পারেননি। তিনি ৯ রান করে আউট হন। তবে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন মুশফিক। তবে সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ১ রান দূরে থাকতে আউট হন তিনি। ১১৬ বলে ৯টি চারে ৯৯ রান করেন মুশফিক। এরপরই বাংলাদেশের ইনিংসে বলা যায় ধস নামে।

এক সময়ে মনে হয়েছিল বাংলাদেশের রান আড়াইশ ছাড়াবে। কিন্তু শেষ দিকের ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ২৩৯ রানে থামে বাংলাদেশের ইনিংস।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ: ৪৮.৫ ওভারে ২৩৯ (লিটন ৬, শান্ত ০, মুমিনুল ৫, মুশফিক ৯৯, মিঠুন ৬০ ইমরুল ৯, মাহমুদউল্লাহ ২৫, মিরাজ ১২, মাশরাফি ১৩, রুবেল ১, মুস্তাফিজ ১*; জুনাইদ ৪/১৯, আফ্রিদি ২/৪৭, হাসান ২/৬০, নওয়াজ ০/৩৯, মালিক ০/১৪, শাদাব ১/৫২)।

পাকিস্তান: ৫০ ওভারে ২০২ (ফখর ১, ইমাম ৮৩, বাবর ১, সরফরাজ ১০, মালিক ৩০, শাদাব ৪, আসিফ ৩১, নওয়াজ ৮, হাসান ৮, ; মিরাজ ২/২৮, মুস্তাফিজ ৪/৪৩, মাশরাফি ০/৩৩, রুবেল ১/৩৮, মাহমুদউল্লাহ ১/৩৮, সৌম্য ১/১৯)।

ফল: বাংলাদেশ ৩৭ রানে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: মুশফিকুর রহিম

বাংলাটুডে২৪/আর এইচ

Comments are closed.