rockland bd

কষ্টার্জিত জয়ে ফাইনালের আশা টিকে রইল বাংলাদেশের

0

ঢাকা, ডেস্ক প্রতিবেদন-


ব্যাটসম্যান সামিউল্লাহ শেনওয়ারির হাত থেকে ছুটে ব্যাট উড়ছে তখন বাতাসে। এর সঙ্গে বাতাসে উড়ছে বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা। পাকিস্তানের বিপক্ষে শেষ ওভারে হেরেছিলো আফগানরা, এবার হারল বাংলাদেশের বিপক্ষে, তাও শেষ বলে। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৩ রানের কষ্টার্জিত এ জয়ে এশিয়া কাপের ফাইনাল খেলার আশা জিইয়ে রাখল বাংলাদেশ।

এশিয়া কাপের সুপার ফোরে রবিবার (২৩সেপ্টেম্বর) নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও ইমরুল কায়েসের ব্যাটে ভর করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৪৯ রান করে বাংলাদেশ। একাদশে সুযোগ পেয়েই নিজের যোগ্যতার প্রমাণ দিয়েছেন ইমরুল কায়েস। তিনি ৮৯ বলে ৬টি চারে ৭২ রান করে অপরাজিত থাকেন। অন্যদিকে রিয়াদ ৮১ বলে ২টি ছক্কা ও ৩টি চারের সাহায্যে ৭৪ রান করেন।

টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি বাংলাদেশের। আগের ম্যাচগুলোর মতো আজও ওপেনিংয়ে ব্যর্থ নাজমুল হোসেন শান্ত। মাত্র ৬ রান করেন তিনি। দ্রুতই ফিরে যান মোহাম্মদ মিঠুন। মাত্র ১ রান করেন তিনি। লিটন কিছুটা আশার আলো দেখান। তবে ব্যক্তিগত ৪১ রান করে সাজঘরে ফেরেন তিনি।

লিটনের পর দুর্ভাগ্যজনক রান আউটের শিকার হন সাকিব। রানের খাতা খোলার আগেই প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন তিনি। সাকিবের পর মুশফিকও রান আউট হন ব্যক্তিগত ৩৩ রানে। এরপর রিয়াত ও কায়েস মিলে দলের হাল ধরেন। তাদের জুটিতে আসে ১২৮ রান। অধিনায়ক মাশরাফি ১০ রান করে আউট হন। এছাড়া মেহেদী হাসান মিরাজ ৫ রান করে অপরাজিত থাকেন।

আফগানদের হয়ে আফতাব আলম ৩টি, রশিদ খান এবং মুজিব উর রহমান ১টি করে উইকেট লাভ করেন।

ব্যাটিংয়ে নেমে জোড়া উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে আফগানিস্তান। তবে শেহজাদ একদিকে ছিলেন অনড়। শুধু ফিফটিই করেননি, হাশমতউল্লাহ শাহিদির সঙ্গে গড়েছেন তৃতীয় উইকেটে ৬৩ রানের জুটি। এমনিতে আক্রমণাত্মক হলেও শাহজাদ এ দিন ছিলেন একটু মন্থর। ৭৩ বলে করেন ফিফটি। তার ব্যাটে যখন রান বাড়ানোর তাড়া, দারুণ এক ডেলিভারিতে জুটি ভাঙেন মাহমুদউল্লাহ। নিজের প্রথম ওভারেই বোল্ড করেন ৫৩ রান করা শাহজাদকে।

তবে জুটি ভাঙার পর আফগানদের চাপে ফেলতে পারেনি বাংলাদেশ। আসগর আফগান ও হাশমতউল্লাহ শাহিদির ৭৮ রানের জুটি এগিয়ে নেয় তাদের। মাশরাফি হাত ধরেই ম্যাচে ফেরে বাংলাদেশ। ৩৯ রান করা আসগার ও ৭১ রান করা শাহিদিকে ফেরান নিজের তিন ওভারের মধ্যে। পূর্ণ করেন আড়াইশ ওয়ানডে উইকেট।

তবে আফগানরা হাল ছাড়েনি। মোহাম্মদ নবি ও শেনওয়ারি তুলেছেন ঝড়। শেষের আগের ওভারে সাকিবকে যখন ছক্কা হাকালেন নবি, ১০ বলে তখন প্রয়োজন ১২ রান। আশার প্রায় সমাধি। পরের বলেই সাকিবের ফুল টসে সীমানায় ক্যাচ দিলেন নবি। আশা এরপরও খুব বেশি ছিল না। কিন্তু পায়ে ক্র্যাম্প নিয়েও শেষ ওভারে মুস্তাফিজ শেষ বলের ফয়সালায় জিতিয়ে দেয় বাংলাদেশকে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ: ৫০ ওভারে ২৪৯/৭ (লিটন ৪১, শান্ত ৬, মিঠুন ১, মুশফিক ৩৩, সাকিব ০, ইমরুল ৭২*, মাহমুদউল্লাহ ৭৪*, মাশরাফি ১০, মিরাজ ৫*; আফতাব ৩/৫৪, মুজিব ১/৩৫, গুলবদিন ০/৫৮, নবি ০/৪৪, রশিদ ১/৪৬, শেনওয়ারি ০/৯)।

আফগানিস্তান: ৫০ ওভারে ২৪৬/৭(শাহজাদ ৫৩, ইহসানউল্লাহ ৮, রহমত ১, হাসমতউল্লাহ ৭১, আসগর ৩৯, নবি ৩৮, শেনওয়ারি ২৩*, রশিদ ৫ গুলবদিন ৫*; মাশরাফি ২/৬২, অপু ০/২৯, মুস্তাফিজ ২/৪৪, মিরাজ ০/৩৬, সাকিব ১/৫৫, মাহমুদউল্লাহ ১/১৭)।

ফল: বাংলাদেশ ৩ রানে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: মাহমুদউল্লাহ

Comments are closed.