rockland bd

বাসা ভাড়া দেওয়ার চুক্তিনামার নমুনা

0

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

“উচ্ছেদ যোগ্য বাড়ি ভাড়ার চুক্তিপত্র দলিল”

মালিকের নাম……., পিতা/স্বামী- ………, ঠিকানা- ………….। ধর্ম: ইসলাম, পেশা: চাকুরী, জাতীয়তা: বাংলাদেশী।
—————— ১ম পক্ষ (মালিক)————-
ভাড়াটিয়ার নাম………,পিতা/স্বামী- …….., ঠিকানা- ………….। ধর্ম: ইসলাম, পেশা: চাকুরী, জাতীয়তা: বাংলাদেশী।
————— ২য় (পক্ষ ভাড়াটিয়া)————-

আমি প্রথম পক্ষ ……., পিতা- …….., ঠিকানা- …….. বাসার মালিক দখলকার বিদ্যমান আছি। বর্তমানে আমি প্রথম পক্ষের নগদ টাকা আবশ্যক হওয়ায় আমার নামের বরাদ্দকৃত বাসাটি মাসিক ভাড়া দিতে ইচ্ছুক হইলে আপনি দ্বিতীয় পক্ষ তাহা ভাড়া নিতে রাজী হন। তাই আমি ১ম পক্ষ আপনি ২য় পক্ষ নিকট আমার নামের বর্নিত বাসাটি নিন্ম বর্নিত শর্ত স্বাপেক্ষে ভাড়া প্রদান করিলাম।

ভাড়া শর্তাদি নিন্মরূপ

১। বাসার মাসিক ভাড়া *****/= ( *** হাজার) টাকা। বাসা ভাড়ার অগ্রীম বাবদ ****/= ( **** হাজার) টাকা ধার্য্য হইল যা ২য় পক্ষ অগ্রীম হিসাবে পরিশোধ করিলেন এবং তা প্রথম পক্ষ গ্রহণ করিলেন।
২। মাসিক ভাড়া ১ তারিখ থেকে ৭ তারিখের মধ্যে দ্বিতীয় পক্ষ বাসার মালিককে (প্রথম পক্ষকে) পরিশোধ করিবেন।
৩। বিদ্যুৎ বিল, গ্যাস বিল আপনেকে (দ্বিতীয় পক্ষকে) পরিশোধ করিতে হইবে।
৪। যে অবস্থায় আমি প্রথম পক্ষ আপনি দ্বিতীয় পক্ষকে বাসা বুঝাইয়া দিয়েছি বাসার ভাড়ার মেয়াদ শেষে আপনি দ্বিতীয় পক্ষ সে অবস্থায় (প্রথম পক্ষকে ) বাসা বুঝাইয়া দিবেন।
৫। বাসার কোনরূপ পরিবর্তন পরিবর্ধন করা যাইবে না।
৬। বাসায় কোন প্রকার অসামাজিক কার্যকলাপ, অবৈধ ব্যবসা করা যাইবেনা। যদি করেন তবে তাহাজন্য আপনি ভাড়াটিয়া দায়ী থাকিবেন, আমি ১ম পক্ষ উহার জন্য কোন প্রকার দায়ি থাকিব না।
৭। আশে পাশের প্রতিবেশীদের সাথে সুসম্পর্ক রাখিয়া বসবাস করিবেন।
৮। উভয় পক্ষ যার যার প্রয়োজনে বাসা ছাড়তে হলে কমপক্ষে ১ (এক) মাস পূর্বে লিখিত ভাবে জানাতে হবে।
৯। কোন অংশীদার নিয়া যৌথভাবে থাকা যাবেনা এবং বাসাটি কারও নিকট হস্তান্তর করিতে পারিবেন না।

স্বাক্ষীগনের স্বাক্ষর

——————————
প্রথম পক্ষের স্বাক্ষর (মালিক)

——————————–
দ্বিতীয় পক্ষের স্বাক্ষর ( ভাড়াটিয়া)

[ *** বাসা ভাড়া দেওয়ার ক্ষেত্রে ১৫০ টাকার স্টাম্প ব্যভার করতে হয়। অর্থাৎ ১০০ ও ৫০ টাকার দুইটি স্টাম্প ব্যবহার করতে হয়।]

Comments are closed.