rockland bd

পলাতক আসামির বক্তব্য প্রচার নিয়ে বিতর্ক

0

ঢাকা, বাংলাটুডে টুয়েন্টিফোর: কোনো পলাতক বা দণ্ডিত আসামির বক্তব্য প্রচার করতে পারবেনা বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যম৷ একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে পিকে হালদারের সাক্ষাৎকার প্রচার নিয়ে দুদকের আবেদনে হাইকোর্ট এই আদেশ দিয়েছেন৷
কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে এতে স্বাধীন সাংবাদিকতা বাধাগ্রস্ত হবে কিনা৷ যারা এটা মনে করেন তারা বলছেন, ‘‘ওই ধরনের সাক্ষাৎকার নেয়া সারাবিশ্বে সাংবাদিকতায় স্বীকৃত৷ সাংবাদিকরা বিশেষ করে অনুসন্ধানী সাংবাদিকরা এটা করে অতীতে অনেক বাহবা পেয়েছেন৷”
গত সোমবার ৭১ টেলিভিশন প্রশান্ত কুমার হালদারের (পিকে হালদার) সাক্ষাৎকার প্রচার করে৷ পরে ওই টকশোতে দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলমকেও সংযুক্ত করা হয়৷ তিনি এক পর্যায়ে পলাতক আসামির সঙ্গে টকশো করবেন না বলে বের হয়ে যান৷ এই পরিস্থিতিতে দুদকের আবেদনে বুধবার হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের ভার্চুয়াল বেঞ্চ পিকে হালদারের সাক্ষাৎকার প্রচারে নিষেধাজ্ঞা দেন৷ আদালত টকশোর ভিডিও ক্লিপও তলব করেছেন যা ১০ জানুয়ারির মধ্যে জমা দিতে হবে৷
একইসঙ্গে পিকে হালদারসহ যে কোনো দণ্ডিত ও পলাতক আসামির বক্তব্য ও সাক্ষাৎকার প্রচার-সম্প্রচারে সংবাদমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন আদালত৷ রুল নিস্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বহাল থাকবে৷ বিষয়টি দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলমও ডয়চে ভেলেকে নিশ্চিত করেছেন৷ তিনি বলেন, ‘‘আদালতের আদেশ হলো কোনো মামলার আসামি বা দণ্ডিতের কোনো ধরনের বক্তব্য প্রচার করা যাবে না৷ যারা পলাতক, যাদের বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট আছে তাদের বক্তব্য সংবাদমাধ্যমে প্রচারে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে৷ এতে বিচার প্রভাবিত হওয়ার আশঙ্কা আছে৷’’
অবশ্য সিনিয়র সাংবাদিক নাঈমুল ইসলাম খান বলেন, ‘‘এধরনের সাক্ষাৎকার সারা দুনিয়ায় নেয়া হয়৷ সাংবাদিকদের কাজ এটা৷ আর এতে বিচার প্রভাবিত হওয়ার প্রশ্নই ওঠে না৷ বিচারকরা প্রভাবিত হবেন কেন?’’
তিনি বলেন, বাংলাদেশে স্বাধীন এবং অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে ডিজিটাল আইনসহ আরো অনেক বাধা আছে৷ সাংবাদিকদের দলীয় লেজুড়বৃত্তিও একটি কারণ৷ এখন নতুন একটি বাধা যুক্ত হলো৷ সংবাদমাধ্যমকে বলা হয় ফোর্থ এস্টেট৷ এভাবে হলে ফোর্থ এস্টেট অকার্যকর হয়ে যাবে৷ বিচারকেরা হয় এটা মাথায় নিচ্ছেন না অথবা তাদের মাথায় এটা দেয়া হচ্ছে না৷
এজন্য বিচারকদের দায়ী না করে তিনি মনে করেন বিষয়টি তাদের কাছে তুলে ধরা দরকার৷ এটা আদালতে সাংবাদিকেরা পার্টি হয়েও করতে পারেন আবার আলোচনার মাধ্যমেও দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পারেন৷ খবর ডয়েচে ভেলের।
আস / বাংলাটুডে টুয়েন্টিফোর।

Comments are closed.