rockland bd

পা হারানো রাসেলকে আরো ২০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ হাই কোর্টের

0

রাসেল সরকার

ডেস্ক রিপোর্ট, বাংলাটুডে টুয়েন্টিফোর: গ্রিন লাইন পরিবহনের বাসের চাপায় পা হারানো রাসেল সরকারকে ২০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশনা দিয়ে রায় ঘোষণা করেছে হাইকোর্ট।খবর বিবিসির
এর আগে গত বছর হাইকোর্ট মি. সরকারকে ৫০ লাখ টাকার ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দিয়েছিল। পরে আপিল বিভাগ ঐ আদেশ স্থগিত করে।
আদেশ স্থগিত হবার আগে ক্ষতিপূরণের ১৩ লাখ টাকার কিছু বেশি পরিশোধ করে গ্রিন লাইন।
পা হারানো গাড়িচালক মি. সরকারকে আরও ২০ লাখ টাকা তিন মাসের মধ্যে ক্ষতিপূরণের এই টাকা বুঝিয়ে দিতে বলা হয়েছে।
মি. সরকারের আইনজীবী খন্দকার সামসুল হক রেজা জানান, এই অর্থ পরিশোধের ব্যাপারে সম্মত হয়েছে গ্রিন লাইন পরিবহন কর্তৃপক্ষ।
বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই রায় ঘোষণা করেন।
২০১৮ সালের ২৮শে এপ্রিল ঢাকার মেয়র মোঃ হানিফ ফ্লাইওভারে গ্রিনলাইন বাসের সঙ্গে মি. সরকারের গাড়ির ধাক্কা লাগে।
পরে গাড়ির চালক মি. সরকার বাইরে বের হয়ে এসে বাস চালকের সাথে কথা কাটাকাটি শুরু করলে বাস চালক এক পর্যায়ে তার পায়ের ওপর দিয়ে বাস চালিয়ে নিয়ে যায়।
এতে মি. সরকারের বাম পা ঘটনাস্থলেই সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।মি. সরকার বলেন, “আমাকে ঢাকা মেডিকেলে, এরপর স্কয়ার আর অ্যাপোলো হাসপাতালে এক মাসেরও বেশি সময় ধরে চিকিৎসা নিতে হয়েছে। আমার মেডিকেল খরচই হয়েছে ১৫ লাখ টাকা। এটা আমাকে কোম্পানি ঋণ হিসেবে দিয়েছে। সেটা তো আমাকে শোধ করতে হবে।”
এই ঘটনায় রাসেল সরকারের গ্রাম, গাইবান্ধার পার্বতিপুর জেলার প্রতিবেশী এবং গাইবান্ধা-৩ আসনের সংসদ সদস্য উম্মে কুলসুম স্মৃতি হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন।
হাইকোর্ট ওই বছরের ১৪ই মে এ বিষয়ে রুল জারি করেন। রুলে জানতে চাওয়া হয়, রাসেলকে কেন এক কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে না।
পরে হাইকোর্ট এক আদেশে মি. সরকারকে ৫০ লাখ টাকা দিতে গ্রিনলাইন পরিবহন কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন। দুর্ঘটনায় পা হারানো রাসেল সরকারকে ২০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার আদেশ দিয়েছে আদালত
সেইসঙ্গে তার পায়ে অস্ত্রোপচার এবং কৃত্রিম পা লাগানোর খরচ দিতে ওই পরিবহন কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেয়া হয়।
আদেশের বিরুদ্ধে গ্রিন লাইন কর্তৃপক্ষ আপিল বিভাগ আবেদন করলেও তা খারিজ হয়।
এই নির্দেশের পর মি. সরকারের চিকিৎসা ও ক্ষতিপূরণ বাবদ গ্রিন লাইন কর্তৃপক্ষ এ পর্যন্ত সাড়ে ১৩ লাখ ৪২ হাজার টাকা দিয়েছে বলে জানা গেছে।
আজকের রায়ের পর আরও ২০ লাখ টাকা পরিশোধ করার ব্যাপারে সম্মত হয়েছে গ্রিনলাইন পরিবহন।

এবিএস

Comments are closed.