rockland bd

খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় সেনাবাহিনীর উদ্যোগে এক মিনিটের বাজার

0

সোহাগ মজুমদার, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি
খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় এবার সেনাবাহিনীর উদ্যোগে চালু হলো ‘এক মিনিটের বাজার’। সরাসরি সবজি সংগ্রহ করে হতদরিদ্র মানুষের মাঝে বিতরণ করছে সেনাবাহিনী। ঈদের পরেও এক মিনিটের বাজার চালু রাখার কথা জানিয়েছে সেনাবাহিনী।
বৈশ্বিক মহামারি করোনা পরিস্থিতিতে অসহায়, কর্মহীন ও প্রতিবন্ধী মানুষের কাছে প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী তুলে দিতে এবার খাগাছড়ির গুইমারা সেনা রিজিয়নের সেনা সদস্যদের উদ্যোগে চালু হয়েছে এক মিনিটের বাজার। কৃষকদের কাছ থেকে ন্যায্য মূলে সবজি ক্রয় করে তা বিনামূল্যে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মধ্যে বিনামূল্যে বিতরণ করা হয়েছে এ বাজার। সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে কোনো প্রকার ঝামেলা ছাড়াই প্রয়োজনীয় পণ্য সংগ্রহ করে হতদরিদ্র গুলো। প্রবেশ পথে ছিল জীবানুনাশক বুথ ও হাত ধোয়ার ব্যবস্থাও। জেলার মাটিরাংগা সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে থরে থরে সাজানো হয় চাল, বরবটি,মিষ্টি কুমড়া, ঢেড়শ, শসা, আলু, চিচিঙ্গাসহ বিভিন্ন ধরনে সবজি। নিজেদের চাহিদামত বাজার বিনামূল্যে সংগ্রহ করে হতদরিদ্র মানুষ। সেনাবাহিনীর এমন উদ্যোগে খুশি কর্মহীন লোকজন।পাশাপাশি সেনাবাহিনীর কাছে সরাসরি সবজি বিক্রি করে দাম ভাল পেয়ে খুশি গুইমারা মাটিরাঙ্গা এলাকার প্রান্তিক কৃষকরা।
আজ সোমবার সকালে জেলার মাটিরাঙ্গা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়েরর মাঠে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে এক মিনিটের বাজার নামে ব্যতিক্রমধর্মী এ উদ্যোগের উদ্বোধন করেন গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ শাহরিয়ার জামান। এসময় তিনি বলেন, এটি একটি সেবা মূলক কার্যক্রম, সেনাবাহিনীর পক্ষে যতদিন সম্ভব তা অব্যহত রাখা হবে। গ্রামীণ অর্থনীতিকে সচল ও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে এমন আয়োজন অব্যাহত থাকবে। সকাল ১০টায় চালু হয়ে ব্যতিক্রমী এ বাজার চলে বেলা ১২টা পর্যন্ত। এসময় চাল এবং বিভিন্ন ধরনের ৮ প্রকার সবজি সংগ্রহ করেন নিম্নআয়ের খেটে খাওয়া লোকজন।
এসময় অন্যান্যের মধ্যে মাটিরাঙ্গা জোন অধিনায় লেঃ কর্ণেল নওরোজ নিকোশিয়ার, সিন্দুকছড়ি জোন অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল কাজী কাওসার জাহান, রিজিয়নের জিটুআই মেজর মঈনুল আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
গুইমারা সেনা রিজিয়ন সুত্রে জানাযায় সেনাবাহিনীর ১ মিনিটেরর এ বাজারের কারনে প্রায় শতাধিক প্রান্তিক কৃষকদের মুখে হাসি ফুটছে আবার অন্য দিকে দুস্থরাও খাদ্য পাচ্ছেন। ঈদের আগেই সেনাবাহিনী জেলার ৯ উপজেলার ১০ হাজারের বেশি দুস্থ পরিবারের কাছে এ ধরনের কাযক্রমের মাধমে ত্রাণ পৌঁছে দেবে। করোনা মহামারী ও ঈদকে সামনে রেখে সেনাবাহিনীর এ মানবিক কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

লিখন/বাংলাটুডে

 

Comments are closed.