rockland bd

করোনা: চীনের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্যিক সম্পর্কে প্রভাব পড়বে না: চীনা রাষ্ট্রদূত

0


ঢাকা, বাংলাটুডে টুয়েন্টিফোর: গতকাল সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে চীনা রাষ্ট্রদূত বলেন, করোনার কারণে চীনের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্যিক সম্পর্কে কোনো ধরনের প্রভাব পড়বে না।
করোনা ভাইরাসের জন্য এ মুহূর্তে চীন কঠিন সময় পার করছে জানিয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত দেশটির রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বলেছেন, এ সঙ্কট সাময়িক।
তিনি আরো বলেন, ‘ভাইরাস মানুষে মানুষে বা প্রাণী থেকে প্রাণীতে ছড়ায়, পণ্যের মাধ্যমে নয়। চীন বাংলাদেশের বড় ব্যবসায়িক পার্টনার। করোনার কারণে এখন দু’দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্ক কিছুটা স্থবির কিন্তু শেষ নয়।’
তিনি বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের অনুরোধ করেন, তারা যেন চীন থেকে তাদের ব্যবসা অন্য দেশে নিয়ে না যান।’চীন বা

চীন ফেরত যাত্রীদের সবাইকে কোয়ারেন্টিনে নেবার প্রয়োজন নেই: আইইডিসিআর
এদিকে চীন ও সিঙ্গাপুর থেকে কেউ আসলেই যে তারা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত-এমন ভাবার কোনো কারণ নেই এবং তাদের হাসপাতালের কোয়ারেন্টিনে নেবারও প্রয়োজন নেই বলে জানিয়েছে আইইডিসিআর।’ করোনা ভাইরাস নিয়ে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে গতকাল সোমবার এমনটিই জানিয়েছেন জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।
সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, চীন বা সিঙ্গাপুর ফেরত যাত্রীরা করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত তা কিন্তু নয়, এটা আমরা বারবার বলছি। এজন্য বারবার বলা হচ্ছে যারা চীন বা সিঙ্গাপুর থেকে আসছেন তারা বিরূপ অবস্থার মধ্যে পড়ছেন। চীনের কিন্তু আরো প্রদেশ আছে, সেখানে কিন্তু এ ভাইরাস ছড়ায়নি। চীন এবং বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থাও জানিয়েছে হুবেই প্রদেশ ও এর আশপাশে যেসব প্রদেশ আছে সেখানে এ ভাইরাস ছড়িয়েছে, সেখানে রোগীর সংখ্যা বেশি। সুতরাং চীন থেকে যে কেউ আসলেই তারা করোনা আক্রান্ত হবে এমন বিষয় কিন্তু নয়। সেই দিকটা আমাদের খেয়াল রাখেতে হবে।
তিনি আরো বলেন, সিঙ্গাপুরে যে ৫ জন বাংলাদেশি আক্রান্ত হয়েছেন তারা একই জায়গায় কাজ করতেন। সুতরাং এরা ছাড়াও দেশটির অন্য জায়গাও যারা কাজ করছেন, বা বাংলাদেশ থেকে ভ্রমণে গিয়েছেন তারা কিন্তু আক্রান্ত এমনটা কিন্তু নয় বা তারা আক্রান্তের তালিকাতেও নেই। সিঙ্গাপুর থেকে আসলেই আমাদের ভীতু হতে হবে বা কর্মসূচি নিতে হবে সে রকম পরিস্থিতি আসেনি।
তিনি জানান, কেবল অতিরিক্ত সতর্কতা হিসেবে আমরা তাদের নিজ দায়িত্বে সেলফ কোয়ারেন্টাইনে বা তার বাসার মধ্যে থাকতে বলা হয়েছে। প্রয়োজন ছাড়া বাইরে না বের হওয়ায় উচিত। আর বের হলে মাস্ক এবং বারবার হাত ধুয়ে ফেলতে হবে। তাহলে এটা ছড়াবে না। আবারো বলছি চীন বা সিঙ্গাপুর থেকে কেউ আসলে তাকে হাসপাতালে আইসোলিশনে নেয়ার দরকার নেই।
নতুন করোনা ভাইরাসের কারণে চীন থেকে দেশে ফেরা ৩১২ জনের দুই সপ্তাহ কোয়ারেন্টাইন সম্পন্ন হয়েছে। ইতোমধ্যে তারা নিজ নিজ বাড়িতে ফিরে গেছেন। তবে সেখানে তাদের আরও ১০ দিন সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে জানান এ কর্মকর্তা। খবর পারস টুডের।

আস / বাংলাটুডে টুয়েন্টিফোর

Comments are closed.