rockland bd

চারঘাট টিএইচও’র কর্মকর্তার বদলি!

0

ওবায়দুল ইসলাম রবি, রাজশাহী প্রতিনিধি
রাজশাহী চারঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর কর্মকর্তাদের চলমান বদলির খেলায় স্থানীয় জনতার চিকিৎসা সেবা ব্যহত হচ্ছে। সদ্য যোগদানকৃত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর কর্মকর্তা আফসানা আলমগীর খানের বদলি স্থানীয় জনমনে প্রশ্ন উঠেছে।
উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স বিভিন্ন সমস্যায় জর্জরিত তার সাথে যোগ হয়েছে চিকিৎসক এবং কর্মকর্তাদের পছন্দের জেলায় বদলি। তাদের নিজস্বার্থ পূরণের খেলায় যখন তারা ব্যাস্ত তখন প্রশাসনিক এবং চিকিৎসা সেবার মান শূন্যের কোটায়।

অনুসন্ধানে জানাযায়, এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসক থাকার কথা ২৭ জন কিন্ত বর্তমান চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন ৭ জন। তাহলে ২ লক্ষ ৬৫ হাজার লোকের চিকিৎসা সেবা দিবে কে? সম্প্রতি চিকিৎসা সেবা নিতে আসা রোগীরা জানায়, সরকারী ভাবে ৩১ প্রকারের ঔষধ সরবরাহ থাকলেও তারা পাচ্ছে দুই ধরনের ঔষধ যা সাদা ও লাল বড়ি। তদুপরি খাবারের মান এবং পরিছন্নতায় রয়েছে অনেক অবহেলা। কিন্ত কর্মকর্তাদের বদলির ধারাবাহিতা থাকলে এই উপজেলা কমপ্লেক্সে ও রোগীদের প্রয়োজন মেটাবে কে?

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আফসানা আলমগীর গনমাধ্যমকে বলেন, ইতোপূর্বে তিনি ঝিনায়দহ হেলথ রির্সোস সেন্টারের সহকারী অধ্যাপক ছিলেন। এই উপজেলায় পদন্নতি হয়ে ১৭ জুলাই যোগদান করেছেন। কিন্ত হঠাৎ তার বদলি ঢাকায় হয়েছে। সরকারী আদেশ তার করার কিছুই নেই। সরকার যেখানে কাজ করতে বলবেন সেখানে তাকে কাজ করতে হবে।

তবে জনে মনে প্রশ্ন, ওই কর্মকর্তা সরকারী চাকুরীর পাশা পাশি এনটিভির উপাস্থাপিকার কাজ করেন এবং তার পরিবার ঢাকায় থাকেন। যার দরুন এই সদ্য বদলি তার নিজস্বার্থ। লক্ষ মানুষের সেবার কথা উপেক্ষা করার অর্থ চিকিৎসক পেশার মান ক্ষুন্য করা। এভাবে চলতে থাকলে মফস্বলে চিকিৎসা সেবা দিবে কে? জনতার উর্পাজনের টাকায় বেতন ও ভাতা নেয়ার বেলায় ষোল আনা অথচ কাজের বেলায় দু-আনা।

আজ মঙ্গলবার চারঘাট উপজেলা আইন শৃঙ্খলা সভায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্মকর্তার হঠাৎ বদলি জনিত বিষয়ে আলোকপাত করেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও আ’লীগ সম্পাদক ফকরুল ইসলাম। বদলি কারনে উপজেলা চেয়ারম্যান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সাথে কথা বলেছেন কিন্ত ফলাফল শূন্য। কেননা ওই কর্মকর্তার নিজ ইচ্ছায় তার বদলি ঢাকায় নিয়েছেন।
রাকিব/বাংলাটুডে

Comments are closed.