rockland bd

শেরপুরে পুজা মন্ডপ পরিদর্শন করলেন পুলিশ সুপার

0

আব্দুল ওয়াদুদ, শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি
বগুড়ার শেরপুরে বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গা পুজা এই পুজা মন্ডপ গুলো সরেজমিনে পরিদর্শন করেন বগুড়া জেলা পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা।
পরিদর্শনের সময় তিনি বলেছেন, এই উৎসব শুধু নিদিষ্ট ধর্মের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয় এটা বাঙ্গালী সংস্কৃতির ঐতিহ্য। যার কারণে এই দুর্গা পুজাটা একটা সার্বজনীন দুর্গা পুজা হিসেবে সবার মাঝে বিরাজ করে।
গত রবিবার রাত্রিতে সনাতন ধর্মাম্বলীদের শারদীয় দুর্গা উৎসবের শেরপুর টাউন বারোয়ারী সারদীয় পুজা মন্ডপ সহ বেশ কয়েকটি পরিদর্শনকালে তিনি এসব কথা বলেন। বগুড়া জেলা পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা আরো বলেন, পুজা মন্ডপ পরিদর্শন আমাদের নিয়মিত পরিদর্শনের অংশ হিসেবে আমরা কাজ করে থাকি। নিরাপত্তা বা জনগনের স্বার্থ পরিপন্থী কোন কর্মকান্ড যে কেউ করে থাকে সেটা সরাসরী আমাকে বলবেন আমি সাথে সাথে এ্যাকশন নিবো। পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন, বগুড়ার শেরপুর সার্কেল এসপি মো. গাজিউর রহমান, শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হুমায়ুন কবীর, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বুলবুল ইসলাম, ট্রাফিক ফাঁড়ির টিআই মো. জাহিদ, শেরপুর পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ হারুন উর রশিদ, সার্জেন্ট ফিরোজ, মুঞ্জুরুল হক, ওমর ফারুক, এএসআই আমিনুর রহমান, পুজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক সংগ্রাম কুন্ড, পৌর পুজা উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক শুভ কুন্ডু, যুগ্ম আহ্বায়ক দেবাশীষ ঘোস সুজিতসহ নেতৃবৃন্দরা। এছাড়ও শেরপুর উপজেলাধীন সাতটি পুজা মন্ডপ সরেজমিনে পরিদর্শন করেন শেরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ লিয়াকত আলী সেখ। উপজেলাধীন এসকল পুজা মন্ডপ পরিদর্শনের সময় তিনি বলেন, এ উৎসব শুধু বাঙালি হিন্দু সম্প্রদাযের জন্য নয়; বরং জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে বাঙ্গালীর জাতীয় ঐক্য চেতনায় এটি একটি মহামিলনোৎসব। বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। এখানে আবহমানকাল থেকে একসঙ্গে হিন্দু, মুসলমান, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান এবং আদিবাসী ও উপজাতি সম্প্রদায়ের লোকেরা মিলেমিশে বসবাস করে আসছে। বিশ্বে এ এক অনন্য ইতিহাস।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার ডা: মোঃ আমির হামজা, উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল জব্বার। পুন্যার্থীদের সাথে দুর্গা পুজার শারদীয় শুভেচ্ছা বিনিময় করেন এবং সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির খোঁজ খবর নিয়ে তিনি আরো বলেন, শান্তিপ‚র্ণভাবে যথাযথ ভাবগার্ম্ভীযের মধ্য দিয়ে পুজা উৎযাপনে আহবান জানান। এবং দুর্গা পুজার নামে কেউ যাতে মাদক, জুয়া, ইভটিজিং ইত্যাদি অসামাজিক কাজে লিপ্ত না হয় সে বিষয়ে সকলকে সজাগ থাকার পরামর্শ দেন।
রাকিব/বাংলাটুডে

Comments are closed.