rockland bd

ষষ্ঠবারের মতো ফিফার ‘বর্ষসেরা’ মেসি

0


খেলা ডেস্ক, ২৪ সেপ্টেম্বর (বাংলাটুডে) :
উয়েফা তথা ইউরোপিয়ান লিগের ‘বর্ষসেরা’ পুরস্কার জিততে না পারলেও এবার ফিফা ২০১৯ সালের বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার ‘দ্য বেস্ট ফিফা মেন’স প্লেয়ার’ জিতলেন বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন তারকা লিওনেল মেসি। ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো ও ভার্জিল ভ্যান ডাইককে পেছনে ফেলে ‘বর্ষসেরা’ এ পুরস্কার জিতে নিলেন লিওনেল মেসি।
গত মৌসুমে বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়ের সংক্ষিপ্ত তালিকায় ছিলেন তিনজন। লিওনেল মেসি, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও ভার্জিল ফন ডাইক। বিশ্বের সব জাতীয় ফুটবল দলের কোচ, অধিনায়ক, নির্বাচিত সাংবাদিক ও সমর্থকদের চোখে এ মৌসুমে সবার সেরা ছিলেন লিওনেল মেসি । ২০১৫ সালের পর আবারও ফিফার দ্য বেস্ট হলেন মেসি।এই নিয়ে রেকর্ড ষষ্ঠবারের মতো ফিফার বর্ষসেরা ফুটবলার নির্বাচিত হলেন মেসি।খবর বিবিসির।
সোমবার রাতে মিলানে অপেরা হাউজ লা স্কালায় ‘দ্য বেস্ট ফিফা ফুটবল অ্যাওয়ার্ড’ অনুষ্ঠানে বর্ষসেরা ফুটবলারের পদক বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হয়। তর্কসাপেক্ষে সময়ের সেরা তারকার হাতে পুরস্কার তুলে দেন ফিফা সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনো।
এর আগে উয়েফা বর্ষসেরার লড়াইয়ে মেসি ও রোনালদোকে পেছনে ফেলে পদক জেতেন লিভারপুলের ডাচ ডিফেন্ডার ভ্যান ডাইক। সেকারণে ফিফা বর্ষসেরার দৌড়েও তাকে এগিয়ে রাখা হচ্ছিল। সময়ের দুই সেরা তারকা মেসি ও রোনালদো এর আগে সমান পাঁচবার করে বর্ষসেরা নির্বাচিত হলেও এবারই প্রথম সংক্ষিপ্ত তালিকায় জায়গা পান ভ্যান ডাইক। কিন্তু সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে মেসিই হয়েছেন বর্ষসেরা।


ফিফার বর্ষসেরা পুরস্কারে রোনালদো-মেসির টানা দশ বছরের (২০০৮-১৭) রাজত্ব ভেঙে গেল ২০১৮ সালে ‘দ্য বেস্ট’ নির্বাচিত হয়েছিলেন ক্রোয়েশিয়া ও রিয়াল মাদ্রিদের মিডফিল্ডার লুকা মদ্রিচ। তিনি উয়েফার বর্ষসেরা পুরস্কার ও ব্যালন ডি’অরও জিতেছিলেন। তবে ২০১৬ সাল থেকে প্রচলন শুরু হওয়া ফিফার ‘দ্য বেস্ট’ পুরস্কারটি এবারই প্রথম হাতে তুললেন ৩২ বছর বয়সী মেসি। প্রথম দুবারের বিজয়ী ছিলেন রোনালদো।
গেল মৌসুমে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৫১ ম্যাচ খেলে মেসি গোল করেন ৫০টি। কেবল লিগে ৩৬ গোল করায় জেতেন লা লিগা ও ইউরোপের সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার। চ্যাম্পিয়ন্স লিগেও ১২ গোল নিয়ে গোলদাতাদের তালিকায় শীর্ষে ছিলেন তিনি। ক্লাবের হয়ে জেতেন লিগ শিরোপা। কোপা আমেরিকায় তার দল আর্জেন্টিনা দখল করে তৃতীয় স্থান।
গত মৌসুমটা দারুণ কাটান রোনালদোও।জুভেন্টাসের হয়ে প্রথম মৌসুমেই ইতালিয়ান সিরি আ শিরোপার পাশাপাশি জেতেন উয়েফা সুপার কাপ। পর্তুগালের জার্সিতেও তিনি ছিলেন সফল। জেতেন দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক শিরোপা। নতুন চালু হওয়া নেশন্স লিগের ফাইনালে হারান ভ্যান ডাইকের নেদারল্যান্ডসকে। পুরো মৌসুমে ৪৩ ম্যাচ খেলে রোনালদো গোল করেন ২৮টি।
লিভারপুলের জার্সিতে গেল মৌসুমটা দুর্দান্ত ছিল ডিফেন্ডার ভ্যান ডাইকেরও। চোখ ধাঁধানো পারফর্ম করে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন। লিভারপুলকে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতাতে রাখেন অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। জাতীয় দলের জার্সিতেও সফল তিনি। নেদারল্যান্ডসকে উয়েফা নেশন্স লিগের ফাইনালে ওঠানোর পেছনে অবদান ছিল তার।

এবিএস

Comments are closed.