rockland bd

মার্কিন পাদ্রি ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের আচরনকে ‘লজ্জাজনক’ বললেন এরদোগান

0

বিদেশ, বিবিসি


তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান বলেছেন, মার্কিন পাদ্রিকে নিয়ে দেওয়া হুমকির মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র চায় তুরস্কে কাবু করতে। এটি খুবই লজ্জাজনক বলে মন্তব্য করেন এরদোগান। ফলে তুরস্ক-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক হুমকির মুখে রয়েছে।

সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে দুই বছর ধরে তুরস্কে আটক মার্কিন নাগরিক খ্রিস্টান ধর্মযাজক অ্যান্ড্রু ব্রানসনের আটক অবস্থাকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি দুই দেশের সম্পর্কে উত্তেজনা তৈরি হয়।
বিষয়টিকে কেন্দ্র করে গত ১ আগস্ট তুরস্কের দুই প্রভাবশালী মন্ত্রীর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইটার বার্তায় বলেছিলেন, ‘‘পাদ্রি অ্যান্ড্রু ব্রানসনকে মুক্তি না দিলে তুরস্কের বিরুদ্ধে বড় রকমের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে।’’
শুক্রবার তুরস্কের স্টিল ও অ্যালুমিনিয়ামের ওপর দ্বিগুণ শুল্কারোপ করেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।
কূটনৈতিক এই টানাপড়েনে ডলারের তুলনায় লাইরার দাম ১৬ শতাংশ কমে গেছে।
তুরস্কের দুই মন্ত্রীর বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার পর যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধেও পাল্টা ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান।
তিনি বলেছেন, তুরস্কে আমেরিকার আইনমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সম্পদ জব্দ করা হবে।
মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমসে লেখা এক কলামে এরদোয়ান হুঁশিয়ারি দেন, যুক্তরাষ্ট্র তাদের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন না করলে নতুন বন্ধু ও মিত্র খুঁজবে তুরস্ক। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র যদি ‘একলা চলার এবং সম্মান না দেখানোর’ পথ ত্যাগ না করে তাহলে তুরস্ক নতুন বন্ধু খুঁজে নেবে।
এরদোগান বলেন, ন্যায়বিচারের ক্ষেত্রে তুরস্ক কখনোও ছাড় দেয়নি ভবিষ্যতেও দিবেনা।
অর্থনৈতিকভাবে তুরস্ককে চাপে ফেলার যে সিদ্ধান্ত যুক্তরাষ্ট্র নিয়েছে সে বিষয়ে জনগনকে আশ্বস্ত করে এরদোগান বলেন, ‘কখনো ভুলে যাবেন না, যদি তাদের ডলার থাকে তবে আমাদের সাথে আমাদের জনগণ রয়েছে, আমাদের অধিকার রয়েছে এবং আমাদের সাথে আল্লাহ তাআলা রয়েছেন।’
এর আগে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে উত্তেজনার মধ্যেই মঙ্গলবার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও’র সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু।

বাংলাটুডে২৪/আর এইচ

Comments are closed.