rockland bd

নতুন নিয়মের বিরুদ্ধে রাবিতে ভর্তিচ্ছুদের মানববন্ধন

0

নতুন নিয়মের বিরুদ্ধে রাবিতে ভর্তিচ্ছুদের মানববন্ধন


রিজভী আহমেদ, রাবি প্রতিনিধি (বাংলাটুডে) : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার নতুন নিয়মের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেছে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনকারী এসব শিক্ষার্থীর প্রায় সবাই রাজশাহীর বিভিন্ন কোচিংয়ের শিক্ষার্থী। আর এসব শিক্ষার্থী কোচিং সেন্টারের শিক্ষকদের পরামর্শেই আন্দোলন করছে বলে আন্দোলনরত কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে।
বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, রাবির ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা হবে মাত্র তিনটি ইউনিটে। প্রতি ইউনিটে পরীক্ষা দিতে পারবে মাত্র ৩২ হাজার শিক্ষার্থী। একটি ইউনিটের ফরমের মূল্য ১৯৮০ টাকা। একজন শিক্ষার্থী উচ্চ মাধ্যমিক যে বিভাগ থেকে পাশ করেছে, সেই শিক্ষার্থী কেবল তার সংশ্লিষ্ট একটি ইউনিটেই ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবে। সেক্ষেত্রে শিক্ষার্থীর পছন্দ অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট বিভাগে ভর্তি পরীক্ষা দিয়ে তার পছন্দক্রম অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য ইউনিটের বিভাগগুলোতে ভর্তি হতে পারবে।
তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের এই সিদ্ধান্তের বিরোধীতা করছেকোচিং সেন্টারের কিছু শিক্ষার্থী। সিদ্ধান্ত পরিবর্তনের জন্য গত তিনদিন ধরে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করছে তারা।
আজ মঙ্গলবারও বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে ভর্তিচ্ছু দুই শতাধিক শিক্ষার্থীকে মানববন্ধন করতে দেখা গেছে। তবে মানববন্ধনে সরেজমিনে দেখা গেছে, মানববন্ধনে অংশ নেয়া সকলেই রাজশাহীর বিভিন্ন কোচিংয়ের শিক্ষার্থীরা।
মানববন্ধনে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মানববন্ধনে যারা এসেছেন তাদের অধিকাংশই ‘এডমিশন চ্যালেঞ্চ’ ও ‘আইকন প্লাস’ কোচিংয়ের শিক্ষার্থী। কোচিংয়ের দুইজন শিক্ষকের সহায়তায় তারা মানববন্ধন কর্মসূচিতে এসেছে।
ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী মিজানুর রহমান বলেন, আমি সায়েন্স থেকে পাশ করে মানবিকে পড়ার জন্য প্রস্তুতি নিয়েছি। কিন্তু পরে জানতে পারি বিভাগ পরির্বতন করে ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবো না। এই বিষয়টি জানার পর আমরা কোচিংয়ের শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলি। তারাই মূলত আমাদের এধরনের আন্দোলনের পরামর্শ দিয়েছেন।
রিমনী আক্তার প্রিয়া নামের এক ভর্তিচ্ছু বলেন, আমি ব্যবসায়ী শাখা থেকে পড়াশোনা শেষ করেছি। মানবিক শাখায় ভর্তির প্রস্তুতি নিয়েছি। কিন্তু মাত্র দুই মাস আগে জানতে পারি বিশ^বিদ্যালয়ের নতুন নিয়মের বিষয়ে। এখন আমাদের একটাই দাবি বিভাগ পরিবর্তনের সুযোগ চাই।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে ভর্তিচ্ছু একজন শিক্ষার্থী বলেন, ‘আমার বাড়ি রাজশাহীর বিনোদপুরে। আমি উচ্চ মাধ্যমিকে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পাশ করেছি। আমি বিজ্ঞান বিভাগেই ভর্তি পরীক্ষা দিব। আর সেজন্য আমি ‘এডমিশন চ্যালেঞ্চ’ এ কোচিং করছি। বন্ধুদের অনুরোধে আমি এখানে এসেছি।’
রাজশাহীর ‘এডমিশন চ্যালেঞ্চ’ কোচিংয়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এ বছর তাদের কোচিং এ ১২০০ এরও বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছে। এই শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রায় অর্ধেক শিক্ষার্থী উচ্চ মাধ্যমিকে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পাশ করেছে, যারা বিভাগ পরিবর্তন করে মানবিক শাখার সঙ্গে ভর্তি পরীক্ষা দিতে চায়।
এ দিকে আজকের মানববন্ধন চলাকালীন কোচিং সেন্টারগুলোর চারজন শিক্ষককেও সেখানে থাকতে দেখা গেছে। তাদের মধ্যে ‘আইকন প্লাস’ কোচিংয়ের তানজিম আরেফিন নামের একজন মানববন্ধনকারী শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন পরামর্শও দিচ্ছিলেন।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে ‘আইকন প্লাস’ কোচিংয়ের শিক্ষক তানজিম আরেফিন বলেন, শিক্ষার্থীদের সঙ্গেই তিনি মানববন্ধনে এসেছেন। তিনি দাবি করেন, আন্দোলনের জন্য শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের কোনো ধরনের পরামর্শ দেয়নি। তবে শিক্ষার্থীদের মানবন্ধনে কোচিংয়ের শিক্ষকরা কেন এসেছেন, এমন প্রশ্নের জবাবে কোনো উত্তর না দিয়ে অন্য প্রসঙ্গে চলে যান।

আমিন/৩০জুলাই/২০১৯

Comments are closed.