rockland bd

রং হাসপাতালের রোগীদের নিরাময়ে সাহায্য করতে পারে

0


ডেস্ক রিপোর্ট, ঢাকা, ২২ জুলাই (বাংলাটুডে) :
রূপ-রস-বর্ণ-গন্ধ যে আমাদের শরীর ও মনের উপরেও যে প্রভাব রাখে, নানাভাবে আমরা তা বুঝতে পারি৷ এবার হাসপাতালের ইন্টেনসিভ কেয়ার ইউনিটেও এই বিষয়গুলিকে গুরুত্ব দিয়ে চিকিৎসার ক্ষেত্রে ইতিবাচক পরিবর্তন আনার চেষ্টা চলছে৷স্বাস্থ্য পরিষেবার ক্ষেত্রে রং একটা বড় ভূমিকা পালন করে৷ বাজারে রংবেরঙের ট্যাবলেট দেখলেই তা টের পাওয়া যায়৷ যেমন ব্যথার ট্যাবলেটের রং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সাদা হয়৷ স্টিমুল্যান্ট বা উদ্দীপক ওষুধের রং হয় লাল বা কমলা৷
কিন্তু চোখ খোলার সঙ্গে সঙ্গে সবার আগে কোন রং দেখা যায়? লাল, নীল না সবুজ? আমাদের স্বাস্থ্যের উপর তার কি কোনো প্রভাব থাকতে পারে?
জার্মানির ভুপার্টাল শহরে বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে এ বিষয়ে গবেষণা চালানো হচ্ছে৷ ইন্টেনসিভ কেয়ার বিশেষজ্ঞ গাব্রিয়েলে ভ্যোবকার ও রং বিশেষজ্ঞ আক্সেল ব্যুটার নিশ্চিত, যে হাসপাতালের কামরার রং রোগীদের স্বাস্থ্যের উপর অবশ্যই প্রভাব রাখে৷ ব্যুটার বলেন, ‘‘হাসপাতালের দিকে কেন নজর দেওয়া যাবে না? সবকিছু রঙিন করে তোলার প্রয়োজন নেই৷ কিন্তু বিভিন্ন রঙের প্রভাব সংক্রান্ত জ্ঞান কাজে লাগিয়ে ধীরে ধীরে রং বদলানো যায়, যেমনটা এখানে করা হয়েছে৷”
হাসপাতালের বিভিন্ন অংশ ও দপ্তরে সাদা, জীবাণুমুক্ত পরিবেশের বদলে দেওয়ালে একটু রঙের ছোঁয়া দেওয়া যেতে পারে বৈকি৷ দুই বছর ধরে রং নিয়ে এই গবেষণা চলেছে৷ নানা ধরনের রঙের শেড নিয়ে পরীক্ষানিরীক্ষা হয়েছে৷ দেওয়ালে প্যাস্টেল ও মাটির রং ব্যবহার করা হয়েছে, আলোর বাতিও বদলানো হয়েছে৷ এই সংস্কারের আগে ও পরে রোগীদের চিকিৎসা প্রক্রিয়া সম্পর্কে প্রশ্ন করা হয়েছে৷পুরুষ নার্স হিসেবে টিলমান ক্যোনিশ বিশেষ করে কঠিন রোগগ্রস্ত মানুষের ক্ষেত্রে একটা পরিবর্তন লক্ষ্য করেছেন৷ তিনি মনে করেন, ‘‘নতুন রং করার পর রোগীদের উপর তার খুব ভালো প্রভাব লক্ষ্য করা যাচ্ছে৷ তাঁরা অনেক কম প্রলাপ বকছেন৷ সে কারণে রোগীরা নিজেদের পারিপার্শ্বিক সম্পর্কে অনেক বেশি সচেতন এবং তাঁরা যথেষ্ট স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করছেন৷”
রোগীদের প্রলাপ হাসপাতালে বড় সমস্যা৷ বিশেষ করে কঠিন রোগগ্রস্ত মানুষের মধ্যে এই প্রবণতা বেশি দেখা যায়৷ রং রোগীদের অনেক শান্ত রাখছে৷ প্রলাপের সম্ভাবনা অনেক কমে গেছে৷ প্রথমদিকে গাব্রিয়েলে ভ্যোবকার-এর মনে সংশয় ছিল৷ কিন্তু রোগীদের বিবৃতির সঙ্গে সংগৃহীত তথ্য মিলে যাচ্ছে৷ ওষুধের পরিমাণের ক্ষেত্রে ফলাফল নিয়েও কোনো সন্দেহ নেই৷ ভ্যোবকার বলেন, ‘‘আমার কাছে সবচেয়ে বিস্ময়কর বিষয় ছিল ওষুধের পরিমাণে পরিবর্তন৷ হাসপাতালের তিনটি ওয়ার্ডেই ওষুধের ব্যবহারের ক্ষেত্রে গড়ে প্রায় ৩০ শতাংশ প্রভাব দেখা গেছে৷ ফলে রোগীরা ৩০ শতাংশ কম ওষুধ খাচ্ছেন৷”
রঙের বিভিন্ন শেড যে আমাদের শরীরের উপর বড় প্রভাব রাখতে পারে, রং বিশেষজ্ঞ হিসেবে আক্সেল ব্যুটার তাতে মোটেই বিস্মিত নন৷ আক্সেল ব্যুটার মনে করেন, ‘‘রং কী, তা জানতে পারলে আমাদের শরীরে কিছু একটা ঘটে৷ রং সরাসরি আমাদের নিঃশ্বাস-প্রশ্বাস ও রক্তে শর্করার মাত্রা বদলে দিতে পারে৷ খিদে পেলে আপনি সেটা হয়তো টের পেতে পারেন৷ রংবেরঙের খাবার দেখলে খিদে নাও পেতে পারে৷ কিন্তু কেউ যদি সুস্বাদু কোনো মিষ্টির ছবি দেখায়, সেটা দেখে রক্তে শর্করার মাত্রা কমে যায় এবং আবার খিদে পায়৷ তখন পেট ভরা থাকলেও খেতে ইচ্ছে করে৷”
হাসপাতালের ইন্টেনসিভ কেয়ার ইউনিটের উপর রঙের প্রভাব নিয়ে গবেষণা চালু থাকবে৷ আলো ও রংয়ের উপর নজর দেবার পর এবার শব্দ ও গন্ধের মতো অন্যান্য বিষয়ের উপরেও নজর দেওয়া হবে৷ ভ্যোবকার ও ব্যুটার এই সব বিষয়ের ক্ষেত্রেও বিপুল সম্ভাবনা দেখতে পাচ্ছেন৷
সুগন্ধ ছড়িয়ে দিন শরীর ও মনে
ফুলের রাজা গোলাপ

কয়েকটি গোলাপকে উল্টোদিক করে কয়েকদিন ঝুলিয়ে রাখুন৷ দেখবেন ফুলগুলো শুকনো হলেও তার সুভাস এবং চেহারা সব ঠিক আছে৷ পরে সুন্দর একটি খোলা বক্সে এই ফুলগুলো সাজিয়ে রাখুন৷ শুকনো ফুলের এই সুগন্ধ মাথাব্যথা, মাথা ঘোরা বা সর্দিতে উপকার দেবে৷
গাঁদা ফুল

শুকনো হলুদ গাঁদা ফুল দেখতে যেমন সুন্দর, তেমন মনেও তরতাজা ভাব এনে দেয়৷ গোলাপের মতো গাঁদা ফুলও ঐ একই নিয়মে শুকিয়ে নিতে পরেন৷ তাজা গাঁদা ফুল ত্বকের কোনো সমস্যা বা কেটে যাওয়া ক্ষতে লাগালেও উপকার হয়৷
রোজমেরি

সুঁইয়ের মতো চিকন পাতার রোজমেরি রান্নায় সুগন্ধ ছড়িয়ে খাওয়ার আগ্রহ বাড়িয়ে দেয়৷ রোজমেরির শুকনো পতার গন্ধও ভালো লাগে অনেকের৷ এই সুঁইপাতা পেটে বায়ু হলে বা পেটে বেশি ভরাভাব হলে উপকারে আসে৷ তাছাড়া পাতাগুলো দু’হাতে ঘষলে শরীরে রক্তসঞ্চালনও ভালো হয়৷
জায়ফল

জায়ফল মসলা হিসেবে রান্নায় ব্যবহার করা হয় – এটা আমরা সকলেই জানি৷ এছাড়া এই ফল এবং তার তেল কিন্তু সুগন্ধী বা পারফিউম তৈরিতেও ব্যবহার হয়ে থাকে৷ তাছাড়া জ্বর, পেটখারাপ বা বমিভাব হলে জায়ফলের চা পান করুন, বেশ উপকার পাবেন৷
শীতকালের সুগন্ধ

বড় কয়েকটা কমলা ‘স্লাইস’ করে কেটে শুকিয়ে নিন, এবং সাথে দারুচিনির কয়েকটি লম্বা টুকরো একসাথে রেখে দিন৷ এটা দেখতে যেমন সুন্দর লাগবে, তেমনি সারা ঘরেই ছড়াবে সুগন্ধ৷ এছাড়া কমলা যে ত্বককে সুন্দর রাখতে সাহায্য করে, সে কথা তো আমরা সকলেই জানি৷
ল্যাভেন্ডার ফুল

এই ফুলের গন্ধ খানিকটা ‘স্ট্রং’ বা বেশ ঝাঁঝালো হলেও বেশ ভালোই লাগে৷ ল্যাভেন্ডার ফুল শুকিয়ে একটা ছোট্ট কাপড়ের থলেতে রেখে ওয়ারড্রোব বা আলমারিতে রেখে দিন৷ দেখবেন কাপড়ে ছারপোকা হবে না৷ তাছাড়া এই ফুল ঘুমোতে সাহায্য করে, কমায় মানসিক চাপ বা স্ট্রেসের কারণে হওয়া উচ্চ রক্তচাপও৷
লবঙ্গ

আমাদের অতি পরিচিত ছোট্ট ফুলের মতো শক্ত এই মসলাটি অন্যান্য ফুলের সাথে রাখলে সে ফুলের সৌন্দর্য আরো বাড়িয়ে দেয়৷ তাছাড়া লবঙ্গ যেমন খাওয়ার রুচি বাড়ায়, তেমনি হজমেও সাহায্য করে৷ দাঁত ব্যাথাতে দারুণ উপকারী লবঙ্গ৷ তাছাড়া লবঙ্গ চিবোলে মুখের দুর্গন্ধও দূরে থাকে৷-ডয়েচে ভেলে

এবিএস

Comments are closed.