rockland bd

পঞ্চগড়ে তালমা নদীর রাবার ড্যামের ব্যাগে পানি ঢুকে ফুলে গেছে ১২ ফুট, নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

0

তালমা নদীর রাবার ড্যামের ব্যাগে পানি ঢুকে ১২ ফুট উচ্চতায় প্রবাহিত হচ্ছে পানি।


সামসউদ্দীন চৌধুরী কালাম, পঞ্চগড় প্রতিনিধি (বাংলাটুডে) : পঞ্চগড়ের তালমা নদীতে নির্মিত রাবার ড্যামের ব্যাগের পূর্ব অংশ প্রায় ৩ মিটার অংশ ফেটে গেছে। শত চেষ্টা করেও বিগত বছরগুলোতে শুস্ক মৌসূমে রাবার ব্যাগ ফোলানো যায়নি। আগামী মৌসূম থেকে ফাটা অংশ মেরামত করে পুনরায় এটি ফোলানোর উদ্যোগ নিয়েছে রাবার ড্যাম দেখভালকারী প্রতিষ্ঠান স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর। কিন্তু এরই মধ্যে অতিবৃষ্টি আর উজানের পানিতে রাবার ড্যামের ব্যাগে পানি ঢুকে ফুলে গেছে ১২ ফুট। এতে করে রাবার ড্যামে পানি আটকে উজানে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।
ড্যামের উত্তর পার্শ্বের হিমালয় বিনোদন পার্কে কোমর সমান পানি জমে গিয়ে পার্কটি দর্শনার্থী শুন্য হয়ে পড়েছে। সহসা পানি না সরলে দীর্ঘমেয়াদী ক্ষতির আশংকা করেছেন পার্ক কর্তৃপক্ষ। নদী পাড়ে তেমন একটা বসতবাড়ী না থাকলেও নদীর দু’পাশে গড়ে ওঠা চা বাগানে পানি উঠেছে। সহসা পানি সরে না গেলে এসকল চা বাগানে বড় ধরণের ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে বলে জানিয়েছেন বাগান মালিকরা।
তালমা রাবার ড্যাম এলাকার দক্ষিণ তালমার বাসিন্দা শিক্ষক আমীর হোসাইন বলেন, শুক্রবার দুপুর থেকেই ধীরে ধীরে রাবার ড্যামের ব্যাগে পানি ঢুকে সেটি ফুলতে থাকে। বিকেলের মধ্যে ড্যামটি প্রায় ১২ ফুট উঁচু হয়ে যায়। এতে করে ড্যামের উজানে পানি জমা হয়ে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হতে শুরু করে। ডুবতে থাকে আবাদী জমি, চা বাগান ও হিমালয় বিনোদন পার্ক। রাতের মধ্যে হিমালয় পার্কে কোমর সমান পানি জমে যায়।
হিমালয় বিনোদন পার্কের ম্যানেজার আব্দুল্লাহ আল মামুন বিনজু বলেন, রাবার ড্যামের ব্যাগে পানি ঢুকে ফুলে যাওয়ায় শুক্রবার জুমআর নামাজের পর থেকেই পার্কে পানি উঠতে থাকে। কয়েক ঘন্টার মাথায় পার্কের কোথাও কোথাও কোমর পরিমান পানি জমে যায়। পশ্চিম দিক থেকে নদীর পানির ¯্রােত এসে পার্কের ভেতর দিয়ে বয়ে যায় রাবার ড্যামের কাছে। তিনি জানান, দ্রুত পানি সরে না গেলে পার্কের অধিকাংশ গাছপালা মরে যাবে। রাইডগুলো ক্ষতিগ্রস্থ হবে। এতে করে আমাদের বড় ধরণের ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখিন হতে হবে।
পঞ্চগড় এলজিইডি নির্বাহী প্রকৌশলী জাহেদুর রহমান মন্ডল বলেন, প্রায় তিন মিটার ফুটো হয়ে যাওয়ার কারণে রাবার ড্যামটি বর্তমানে অচল হয়ে আছে। আমরা চেষ্টা করছি আগামী মৌসূমের আগেই এটি সচল করতে। কিন্তু কয়েকদিনের অতিবৃষ্টি আর উজানের ঢলে হঠাৎ করেই রাবার ড্যামের ব্যাগে পানি ঢুকে ফুলে গেছে। বিষয়টি আমি স্থানীয় প্রশাসনসহ প্রধান কার্যালয়ে অবহিত করেছি। পানি কমে না গেলে আসলে আমাদের এই মূহুর্তে করনীয় কিছুই নেই। পানি কমে গেলে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।
উল্লেখ্য, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এজিইডি) পঞ্চগড় সূত্রে জানা যায়, ২০০৫-২০০৬ অর্থবছরে ক্ষুদ্র ও মাঝারি নদীতে ১০টি রাবার ড্যাম নির্মাণ প্রকল্পের অধিনে পঞ্চগড় সদর উপজেলার তালমা নদীতে প্রায় সাড়ে ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে রাবার ড্যাম নির্মাণ করা হয়। একই সাথে ওই নদী সংলগ্ন হাফিজাবাদ ও কামাত কাজলদিঘী ইউনিয়নের বেশ কিছু এলাকায় সেচ সুবিধা দেয়ার জন্য প্রায় দেড় কোটি টাকা ব্যয়ে পানি প্রবাহের নালা বা ক্যানেল নির্মাণ করা হয়। এতে সেচ সুবিধায় আনার কথা ১৯টি গ্রামের প্রায় দেড় হাজার হেক্টর জমি। পরের বছর থেকে স্বল্প খরচে সেচ সুবিধা পায় ওই এলাকায় প্রায় ১০ গ্রামের কয়েক শতাধিক মানুষ। বোরো চাষসহ রবি শস্য চাষে নতুন দিগন্তের সূচনা হয়। ড্যামের রাবার ব্যাগে বাতাস ঢুকিয়ে প্রায় ১২ ফুটের মত ফোলানোর ফলে নদীর পানি ক্যানেল দিয়ে চলে যেত বহুদুর পর্যন্ত। কিন্তু বড় ধরণের ত্রুটি দেখা যাওয়ার কারণে ২০১৪ সাল থেকে রাবার ড্যামটির কার্যক্রম পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়।
এছাড়া ২০১৭ সালের বন্যায় ড্যামের পানি প্রবাহের নালাটির বিভিন্ন স্থানে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরপর ২০১৮ সালে সমিতির সহায়তায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর রাবার ড্যামটির পূর্ব অংশের রাবার ব্যাগের ৮ ইঞ্চি ফেটে যাওয়া অংশ সংস্কার কাজ করে পুনরায় চালু করে দেয়। কিন্তু রাবার ব্যাগ ৪-৫ ফুটের উপর ফোলাতে না পারার কারণে কারণে নদীতে বেশি পানি ধারণ করতে না পারায় কৃষকরা এতে করে সুবিধা পায়নি। গত শুস্ক মৌসূমে রাবার ব্যাগ প্রায় তিন মিটার ফাটা থাকার কারণে কোনভাবেই রাবার ড্যাম চালু করা সম্ভব হয়নি।

আমিন/১৪জুলাই/২০১৯

Comments are closed.