rockland bd

সৈয়দপুরে ২৫০ শয্যার ডায়াবেটিক হাসপাতালের ভিত্তি স্থাপন সমাজকল্যাণ মন্ত্রীর

0

সৈয়দপুরে ২৫০ শয্যার ডায়াবেটিক হাসপাতালের ভিত্তি স্থাপন শেষে মোনাজাতে অংশ নেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রী।


রুখসানা জামান শানু, সৈয়দপুর প্রতিনিধি (বাংলাটুডে) : সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নূরুজ্জামান আহমেদ বলেছেন, শেখ হাসিনার সরকার জীবনভর দরকার। কেননা তিনি যে উন্নয়ন অগ্রযাত্রা শুরু করেছেন এর ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে তাঁর কোন বিকল্প নেই।
মন্ত্রী শুক্রবার (১২ জুলাই) বিকেলে নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরের সুলতাননগরে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট ডায়াবেটিক হাসপাতালের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে এসব কথা বলেন।
দেড় একর জমির উপর নির্মাণ হতে যাচ্ছে ওই হাসপাতালটি। এর ভিত্তিপ্রস্তর অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সৈয়দপুর ডায়াবেটিক সমিতির সভাপতি ও বিশিষ্ট শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. আবু আহমেদ মুর্তজা। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন সংরক্ষিত আসনের সাংসদ রাবেয়া আলীম, পদ্মা সেতু প্রকল্পের প্রধান সমন্বয়ক মেজর জেনারেল আবু সাঈদ মো. মাসুদ, বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি ঢাকার সভাপতি প্রফেসর এ. কে আজাদ খান, সাবেক সাংসদ শওকত চৌধুরী, নীলফামারী জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন, সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোখছেদুল মোমিন, সৈয়দপুর পৌরসভার মেয়র অধ্যক্ষ মো. আমজাদ হোসেন সরকার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) শাহিনুর আলম প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সৈয়দপুর ডায়াবেটিক সমিতির কার্যকরী সদস্য মহসিনুল হক।
প্রধান অতিথির ভাষণে মন্ত্রী আরও বলেন, আমি রংপুর অঞ্চলের মানুষ। প্রধানমন্ত্রী আমাকে কৃপা করে মন্ত্রী বানিয়েছেন। কাজেই আমি সরকারের সকল উন্নয়ন কর্মসূচি সূচারুরুপে পালন করতে চাই। পাশাপাশি অবহেলিত উত্তরাঞ্চলের উন্নয়ন কাজ ত্বরান্বিত করতে দলমত নির্বিশেষে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।
তিনি জোর দিয়ে বলেন, সৈয়দপুরে আধুনিক হাসপাতালটি দ্রুত বাস্তবায়ন করা হবে। প্রধানমন্ত্রী ও জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষকে শান্তি ও স্বস্তি দিয়েছেন। তাঁকে ২১ বার হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্ত মানুষের ভালবাসা ও বিধাতার ইচ্ছেয় বেঁচে আছেন। শেখ হাসিনার কারণেই বাংলাদেশ এখন বিশ্বের কাছে রোল মডেল বলে তিনি উল্লেখ করেন।
অনুষ্ঠানে বিভিন্ন পর্যায়ের রাজনীতিবিদ, জনপ্রতিনিধি, সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা, গণ্যমান্য ব্যক্তি ও দৈনিক ও স্থানীয় পত্রিকার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন। সৈয়দপুর ডায়াবেটিক সমিতির উদ্যোগে ওই আধুনিক হাসপাতালটি গড়ে তোলা হচ্ছে। ১৯৯৪ সালে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সুলতান প্রামাণিক সৈয়দপুর-পার্বতীপুর সড়কের পাশে এক একর জমি দান করেন। পরে সমিতির উদ্যোগে আরও ৫৭ শতক জমি ক্রয় করা হয়।

আমিন/১২জুলাই/২০১৯

Comments are closed.