rockland bd

শেরপুরে করতোয়া নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় মাছ ধরার মাহৎসব

0

করতোয়া নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় মাছ ধরার মহাৎসবে মেতেছে নদী পারের মানুষ।


আব্দুল ওয়াদুদ ,শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি (বাংলাটুডে) : বগুড়ার শেরপুরের প্রমত্তা করতোয়া নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় মাছ ধরার মহাৎসবে মেতেছে নদী পারের মানুষেরা। বাধভাঙ্গা এই আনন্দে সামিল হতে সবাই বিভিন্ন ধরনের জাল নিয়ে নেমে পরেছে নদীতে।
জানা যায়, এক সময়ের খড়স্রোতা এই নদীটি সময়ের বির্বতনে দখল ও দূষণের কবলে পড়ে এখন মরা নদীতে পরিণত হয়েছে। দখলবাজরা নদী দখল করে বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়েছে আর নদী পাড়ের মানুষ নদীতে বিভিন্ন ধরনের ফসলের চাষ করেছে এতোদিন। আর এ কারনে নব্যতা ও যৌবন হারিয়েছিল এই করতোয়া নদী। চৈত্র মাস আসার আগেই প্রমত্তা করতোয়া তাঁর র্জৌলুস যৌবন হারিয়ে পানি শূন্যতায় ভূগছিল। বেশিদিন আগের কথা নয় যখন নদীর বুক জুড়ে নিরন্তর বয়ে চলতো ছল ছল পানি। আর জেলেদের কর্মব্যস্ত দেখা যেত মাছ শিকারে। নদীতে গুণটানা নৌকা চলতে দেখা যেত। দীর্ঘদিন পর চলতি প্রবল বর্ষনে যৌবন ফিরে পেয়েছে করতোয়া নদী। নদী উপচে পানি উঠেছে চরের মধ্যে। দীর্ঘদিন পর নদীতে এমন পানি দেখে ঘরে থাকতে পারেনি নদীপাড়ের জেলে পরিবার। সবাই হুমড়ি খেয়ে পরেছে নদীর বুকে। যার যা কিছু আছে তাই নিয়ে ঝেপে পরেছে মাছ ধরার মহাৎসবে।
উপজেলার ফুলবাড়ি ঘাটপার, বান্নিঘাট, শেরুয়া দহপাড়া, মির্জাপুরের কুনিঘাট, খানপুরের কয়েরখালি এলাকায় গিয়ে দেখা যায় এমন মাছ ধরার চিত্র।
কুনিঘাট এলাকার বেল্লাল, আজিমুদ্দিন, ফজলু বলেন, করতোয়া নদীতে পানি দেখে আমরা খুবই আনন্দিত। অনেকদিন পর নদীতে মাছ ধরতে পেরে আমাদের খুব ভাল লাগছে। করতোয়া নদী যেন সারা জীবন এমনি যৌবনা থাকে এই কামনাই করছি। এছাড়া করতোয়া নদী যেন অবৈধ দখলমুক্ত থাকে সেজন্য উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানাচ্ছি।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা মো. লিয়াকত আলী সেখ জানান, করতোয়া নদীর নব্যতা ফিরিয়ে আনতে নদী খনন প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার। বগুড়ায় এই খনন কাজ শুরু হয়েছে। পর্যায়ক্রমে আমাদের শেরপুরেও নদী খনন করা হবে। খননের কাজ শেষ হলেই করতোয়া নদী পুনরায় যৌবন ফিরে পাবে বলে আশা করছি।

আমিন/১২জুলাই/২০১৯

Comments are closed.