rockland bd

কক্সবাজার সমুদ্রসৈকত থেকে ৬ জনের মৃতদেহ উদ্ধার

0


ডেস্ক রিপোর্ট, ঢাকা, ১০ জুলাই (বাংলাটুডে) :
কক্সবাজার সমুদ্রসৈকতের সিগাল পয়েন্ট থেকে আজ (১০জুলাই) ছয় জনের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৈরী আবহাওয়ার কবলে পড়ে ট্রলার দুর্ঘটনায় ওই ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে সুগন্ধা পয়েন্ট থেকে ওই ছয়জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। তবে তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। বুধবার সকাল সাতটার দিকে ভাসমান একটি ট্রলারের পাশ থেকে মুমূর্ষু অবস্থায় দুজনকে উদ্ধার করে পুলিশ। এখনো অন্তত সাতজন নিখোঁজ।
উদ্ধার করা ব্যক্তিরা হলেন ভোলার চরফ্যাশনের মো. জুয়েল (২২) ও মনির আহমদ (৫০)। তাঁদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হতাহত ও নিখোঁজ ব্যক্তিরা সবাই জেলে।
স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কক্সবাজার সদর মডেল থানার পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) মো. খায়রুজ্জামান সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, ভোরে সৈকতে লাশ ভেসে আসতে দেখে স্থানীয় লোকজন পুলিশকে জানান। এরপর পুলিশ সৈকতের সিগাল পয়েন্ট থেকে প্রথমে চার ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার করে। সকাল সাতটার দিকে সৈকতে কাছে আটকে পড়া একটি মাছ ধরার ট্রলারের পাশ থেকে আরও দুই ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এ সময় ট্রলারের আশপাশ থেকে ভাসমান অবস্থায় দুই ব্যক্তিকে জীবিত উদ্ধার করা হয়। পুলিশ জানায়, এসব লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। আহত দুই জেলেকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ পরিদর্শক মো. খায়রুজ্জামান বলেন, পাঁচ দিন আগে ভোলার চরফ্যাশন থেকে একটি ট্রলার নিয়ে বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরতে নামেন স্থানীয় ১৫ জন জেলে। ট্রলারটি কক্সবাজার উপকূলে মাছ ধরতে এসে ঝোড়ো হাওয়ার কবলে পড়ে। একসময় ট্রলারটির ইঞ্জিনও বিকল হয়ে যায়। প্রাণ রক্ষার্থে জেলেরা সাগরে ঝাঁপ দেন। কিন্তু সাগর উত্তাল থাকায় উপকূলে আসতে পারেননি তাঁরা। আজ ভোরে সমুদ্র সৈকত থেকে ভাঙাচোরা একটি মাছ ধরার ট্রলার জব্দ করা হয়েছে।
পুলিশ আরো জানায়, নিখোঁজ জেলেদের উদ্ধারে অনুসন্ধান চলছে। মৃত ব্যক্তিদের পরিচয় এখনো শনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, নিহত ব্যক্তিরা সবাই চরফ্যাশনের বাসিন্দা।
এবিএস

Comments are closed.