rockland bd

জামালপুরে মানবিকতার অনন্য দৃষ্টান্ত আমেরিকা প্রবাসীর

0


মিঠু আহমেদ,জামালপুর প্রতিনিধি (বাংলাটুডে) :
মানবিকতার অনন্য এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে আমেরিকা প্রবাসী এক যুবক। বিগত ৩ বছর ধরে সপ্তাহে প্রায় ২দিন রোজা রেখে আর তা থেকে যে অর্থ সঞ্চয় হয় তা দিয়ে ক্ষুধার্থ প্রায় শতাধিক হতদরিদ্র মানুষের মাঝে চাল ডাল ও সংসারের অন্যন্যা দ্রব্যাদি কিনে দেয় সে। আর এতে করে জামালপুর শহরের শতাধিক অসচ্ছল ও অসহায় মানুষগুলোকে বিগত ৩ বছরে ৫০ হাজার বেলা খাবার বিতরন করে আসছে।
এলাকাবাসী ও তার নিকটাত্মীয়রা জানান, জীবনের শুরু থেকেই হতদরিদ্র মানুষগুলোর জন্য কিছু একটা করার চিন্তা ছিল আমেরিকা প্রবাসী যুবক ডঃ রাফিউল ইসলাম রাফির। পেশায় একজন আইনজীবি। শহরের ক্ষুধার্থ অসহায় বৃদ্ধ মানুষগুলোর জন্য প্রবাসে প্রতি সপ্তাহে ২ দিন রোজা রেখে তা থেকে সঞ্চিত অর্থ দিয়ে বিগত ৩ বছর ধরে শতাধিক হতদরিদ্রদের জন্য প্রতি সপ্তাহে চাল,ডাল,তেল সহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি একটি কার্ডের মাধ্যমে সপ্তাহের প্রতি শুক্রবার শহরের ৪টি স্থান থেকে বিতরন করে থাকে। গেল ৩ বছরে ৫০ হাজার বেলা খাবার সামগ্রী বিতরন করা হয়েছে। অভুক্ত এই মানুষগুলোর এই সহযোগীতায় অনেকটাই খুশি। সেই সাথে তাদের দাবী সমাজের অন্যান্য বিত্তবানরা যদি এমন উদ্যোগ নিতো তাহলে জেলা দারিদ্রমুক্ত হয়ে যেত।
ডঃ রাফিউল ইসলাম রাফি বলেন, আছি ছোট থাকতেই দেখিছি এ জেলার মানুষ ক্ষুধার তাড়নায় অনেক কষ্ট করেছে। আর তখন থেকে আমার মনে একটা চিন্তা বাসাবাধতে থাকে এদের জন্যে কি করা যায়? এর ধারাবাহিকতায় বিগত তিন বছর আগে আমার নিজ উদ্যোগে “ক্ষুধা নিবারন প্রকল্প” শুরু করি রোজার বিনিময়ে খাদ্য। প্রথমে অনেকটাই ছোট করে শুরু করি। এখন আস্তে আস্তে বড় পরিসরে করছি। আমি চাই এ দেশের মানুষ যেন ক্ষুধায় কষ্ট না করে।
মানবাধিকার কর্মী,জাহাঙ্গির সেলিম বলেন, ক্ষুধা আর দারিদ্র মুক্ত সমাজ গঠনে তার মত সমাজের বিত্তবানরা এগিয়ে আসার পাশাপাশি,নিজেরাও একটু ভোগ বিলাশের জীবন পরিহার করে ক্ষুধার্থ মানুষের মুখে খাবার তুলে দিতে সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে আয়োজকরা।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, সরকারের সীমিত সামর্থের মাঝেই অর্থের যোগন দিয়ে ক্ষুধার্থদের জন্য কাজ করতে হয়। এজন্য যদি ব্যাক্তিগত উদ্যোগে হতদরিদ্রদের সহয়তা করা হয় তাহলে অনেকেই স্বাবলম্বি হয়ে উঠবে বলে জানালেন প্রশাসনের এই কর্মকর্তা। ক্ষুধা নিবারন ও দারিদ্রতা দূরিকরনে সরকারের পাশাপাশি এমন উদ্যোগ নিতে সমাজের বিত্তবানরা এগিয়ে আসবে এমনটি প্রত্যাশা সকলের।

আমিন/১৪মে/২০১৯

Comments are closed.