rockland bd

পাকা চুল কালো করার ঘরোয়া উপায়

0


ডেস্ক প্রতিবেদন (বাংলাটুডে):

বয়সের সঙ্গে সঙ্গে চুল পাতলা হওয়াই যে কেবল মনকেমন ডেকে আনে, এমনটা নয়। কালো চুলের মাঝে হঠাৎ দু’-তিনটে রুপোলি রেখা দেখা দিলে মন খারাপ হয়ে যাওয়াটা স্বাভাবিক। চুলে পাক ধরা যে কেবল বয়স বাড়লেই হয়, এমনটা নয় কিন্তু। বরং হজমের গোলমাল, চুলের অযত্ন, মানসিক চাপ ইত্যাদি কারণে চুলে পাক ধরতে পারে। কোনও কোনও ক্ষেত্রে আবার বংশগত কারণেও পাক ধরে চুলে।
তবে চুল পাকলেই তা কালো করতে শুরু করাই আমাদের স্বাভাবিক প্রবৃত্তি। বাজারচলতি নানা হেয়ার ডাই ব্যবহার করে কিংবা হেনা করে চুলের রং ফেরাতে চেষ্টা করেন অনেকেই। কিন্তু বাজারচলতি নানা হেয়ার ডাইতে অ্যামোনিয়া মেশানো থাকে, যা চুলের ভীষণ ক্ষতি করে। অনেকে আবার হরমোন থেরাপির সাহায্যে চুলের পিগমেন্টেশন বাড়িয়ে রং ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করেন।
তবে ঘরোয়া কিছু উপায় অবলম্বন করলেও কিন্তু চুলের রং কালো করা সহজ হয়। জেনে নিন সে সব কৌশল।

কালো চা: চায়ের লিকার চুলের প্রাকৃতিক কন্ডিশনার। এক কাপ জলে চা ফেলে তা ফুটিয়ে ঠান্ডা করে ছেঁকে নিন। এই লিকার চা চুলে ঢেলে কয়েক মিনিট রেখে দিন। এর পর কোনও ক্ষারবিহীন নরম শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার দিয়ে ধুয়ে নিন চুল। কয়েক মাস এমন করতে থাকলে ধীরে ধীরে রং ফিরে পাবে চুল।
নারকেল তেল-লেবুর রস: তিন টেবিল চামচ নারকেল তেলে দু’ চা চামচ লেবুর রস। এই মিশ্রণ চুলের কালো রঙের জন্য খুবই উপকারী। এই মিশ্রণ মাথার ত্বকে আর চুলে ভাল ভাবে মাসাজ করুন। তার পর শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার দিয়ে ধুয়ে ফেলুন চুল।

আমলকি: নারকেল তেলে কাঁচা আমলকি ফেলে সেই তেল ফুটিয়ে নিন। এতে আমলকির রস মিশে যায় তেলে। ভাল ফল পেতে, আমলকি থেঁতো করেও মিশিয়ে দিতে পারেন নারকেল তেলে। এ বার তা ঠান্ডা হলে ভাল করে মাথায় ও চুলে মাখিয়ে নিন। আধ ঘণ্টা রাখার পর বাল করে শ্যাম্পু করে নিন। কন্ডিশনার দিতে ভুলবেন না। সপ্তাহে তিন-চার দিন এই মিশ্রণ ব্যবহার করুন।
জবা ফুলের কুঁড়ি: কয়েকটা জবা ফুল ও তার পাতা মিক্সারে পিষে তার সঙ্গে দু’চামচ নারকেল তেল ও একটু জল যোগ করে একটি মিশ্রণ বানান। এটি স্নানের আগে আধ ঘণ্টা মাথায় মেখে শ্যাম্পু করে নিন। সপ্তাহে অন্তত চার দিন এই পদ্ধতি অবলম্বন করুন।-সূত্র: আনন্দবাজার

এবিএস/৬/৩/১৯

Comments are closed.