rockland bd

গোবিন্দগঞ্জে সাঁওতাল খুনীদের গ্রেফতারে ২৪ ঘন্টার অল্টিমেটাম

0


শাহজাহান সিরাজ, গাইবান্ধা প্রতিনিধি (বাংলাটুডে) :
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামারের বিরোধপূর্ণ জমি নিয়ে ত্রিমুখী সংঘর্ষে পুলিশের গুলিতে ৩ সাঁওতাল হত্যা মামলায় অভিযুক্তদের গ্রেফতারে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছেন সাঁওতাল নেতারা। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তাদের গ্রেফতার করা না হলে ২৭ মার্চ গাইবান্ধা পিবিআই অফিস ঘেরাও কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।
২ মার্চ শনিবার দুপুরে সাহেবগঞ্জ বাগদাফার্ম ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির উদ্যোগে সাঁওতাল হত্যাকারিদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে থানা মোড়ে অনুষ্ঠিত এক মানববন্ধনে সাঁওতাল নেতারা এ কর্মসূচি ঘোষণা দেন। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, সিপিবি জেলা সভাপতি মিহির ঘোষ, বগুড়া আদিবাসী গবেষণা পরিষদ সভাপতি নজরুল হোসেন, সিপিবি গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা সভাপতি তাজুল ইসলাম, উপজেলা ওয়ার্কার্স পার্টি সভাপতি আব্দুল মতিন মোল্লা, সাহেবগঞ্জ ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির সভাপতি ফিলিমন বাস্কে, ক্ষেতমজুর সমিতি উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ওয়াহেদুন্নবী মিলন, কৃষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রঞ্জু, সাহেবগঞ্জ ভূমি উদ্ধার সংগ্রাম কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক স্বপন শেখ, সাধারণ সম্পাদক জাফুরুল ইসলাম, আদিবাসী নেতা রাফায়েল হাজদা, সুফল হেমব্রম ও প্রিসিলা মুরমু প্রমূখ।
এর আগে আদিবাসী-বাঙ্গালীর সহস্রাধিক নারী-পুরুষ ফেস্টুন ও লাল ফ্লাগসহ উপজেলার মাদারপুর জয়পুরপাড়া থেকে একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি দিনাজপুর-গোবিন্দগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কে ৫ কিলোমিটার পায়ে হেটে গোবিন্দগঞ্জে পৌঁছে এ মানববন্ধনে অংশ নেয়। মানববন্ধন শেষে র‌্যালিটি পৌর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পূর্বের স্থানে ফিরে যায়।
এদিকে, গাইবান্ধা পি.বি.আইয়ের সিনিয়র এ.এস.পি আবদুল হাই জানান, ৩ সাঁওতাল হত্যা মামলায় এ পর্যন্ত ২৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্যান্যদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ৬ নভেম্বর রংপুর চিনিকলের বিরোধপূর্ণ জমিতে পুলিশের উপস্থিতিতে চিনিকল শ্রমিক আখ কাটতে গেলে সাঁওতালরা বাধা দেন। এসময় পুলিশ, চিনিকল শ্রমিক ও সাঁওতালদের ত্রিমূখী সংঘর্ষ বাধে। এতে পুলিশের গুলিতে শ্যামল হেমব্রম (৩০), মঙ্গল মার্ডি (৫০) ও রমেশ টুডু(৪০) নামের তিন সাঁওতাল নিহত হন। আহত হন উভয় পক্ষের অন্তত ৩০জন।

রাশেদ/৩/৩/১৯

Comments are closed.