rockland bd

সদ্ধিরগঞ্জে নির্যাতনের স্বীকার গার্মেন্ট শ্রমিকদের মানববন্ধন

0


জেলা প্রতিনিধি, নারায়নগঞ্জ (বাংলাটুডে) : শ্রমিক নির্যাতান ও বিনা নোটিশে ছাটাই করার প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের আদমজী ইপিজেডের ডিএনভি ক্লোথিং লিঃ কারখানার শ্রমিকরা নারায়ণগঞ্জ-আদমজী-শিমরাইল সড়কের সিদ্ধিরগঞ্জ পুল এলাকায় ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন পালন করেছে।
আজ বৃহস্পতিবার সকালে শ্রমিকরা এ মানববন্ধন করেন ।
শ্রমিকদের অভিযোগ, বিনা নোটিশে ১৫০ পোশাক শ্রমিক ছাঁটাই ও ২৪০০ শ্রমিক নির্যাতনের প্রতিবাদে এ মানববন্ধন পালন করে।
এ সময় শিল্পাঞ্চল পুলিশ ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশে বিপুল সংখ্যক উপস্থিতির কারণে কোন অপ্রীতিকার ঘটনা ঘটেনি। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে ৯টা পর্যন্ত এ মানববন্ধন পালন করে শ্রমিকরা।
ইপিজেড সূত্রে ও সাধারণ শ্রমিকরা জানায়, ফ্যক্টরীটির একটি চক্র দীর্ঘদিন যাবত সাধরণ শ্রমিকদের কাজে বাধা দিয়ে আসছিল। এছাড়া ঐ চক্র ফ্যক্টরীর সিওসহ কয়েকজন কর্মকর্তাকে তারা শারীরিক নির্যাতন করেছিল। কৌশলে এ চক্রটি বিভিন্ন গার্মেন্টে শ্রমিক হিসাবে যোগদান করে গার্মেন্টে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরী করাই তাদের কাজ।
পোশাক শ্রমিক জানায়, গত ১৩ ফেব্রুয়ারি বুধবার বিনা নোটিশে হঠাৎ করেই বেপজার মাধ্যমে ৫৩ জন শ্রমিকে সাসপেন্ড লেটার ধরিয়ে দেয়া হয়। এ বিষয় নিয়ে মালিক পক্ষের সাথে কথা বলতে গেলে ঐ ৫৩ জন সহ মোট ১৫০ জন শ্রমিককে ছাটাই করে ডিএনভি ক্লথিং লিমিটেড কর্তৃপক্ষ। পরে শ্রমিকদের উপর নির্যাতন করে ইপিজেড এলাকা থেকে বের করে দেয় কারখানা কর্তৃপক্ষ ও আদমজী ইপিজেডের নিরাপত্তা কর্মিরা।
ডিএনভি ক্লোথিং কারখাার অপারেটর মহিউদ্দিন বলেন, বিনা বেতনে আমাদের ছাঁটাই করে দেয় গার্মেন্ট কর্তৃপক্ষ।
নারী শ্রমিক অপারেটর সালমা জানান, হঠাৎ করে শ্রমিক ছাঁটাইয়ের ব্যাপারে কথা বলতে গেলে কারখানার কর্মচারী ও বেপজার সদস্যরা আমাদের সাথে ঝগড়া করে পরে মারধর করে ।
আন্দোলনকারীরা জানায়, ডিএনভি ক্লোথিং লিমিটেডের সালাউদ্দিন নামে এক পিএমকে বহিষ্কার করায় শ্রমিকরা তার পক্ষে সাফাই গাইতে গেলে কারখানা কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের ছাঁটায়ের এ ঘটনা ঘটে।
ডিএনভি ক্লোথিং এর জিএম এডমিন এটিএম মোস্তফা (অবঃ মেজর) জানায়, কিছু শ্রমিক অযৌক্তিক ইনক্রিমেন্টসহ অন্যান্য দাবি দাওয়া আদায়ের লক্ষ্যে আন্দোলন করে আসছিল। তাছাড়া পিএম সালাহউদ্দিন মাদকসেবী। আমরা ব্যাপারটি বুঝতে পারায় সে নিজ থেকে ইস্তফা দেয়। সে চলে যাওয়ায় তার কয়েকজন সহযোগী অসন্তুষ্ট হয়ে ফ্যাক্টরীতে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরী করে। তাছাড়া আমরা শ্রমিকদের ছাটাই করিনি। তাদেরকে কারণ দর্শানো নোটিশ দেয়া হয়েছিল। কিন্তু তারা কারণ দর্শানোর নোটিশের জবাব না দিয়ে আন্দোলন শুরু করে।
এদিকে একাধিক সাধারণ শ্রমিক জানায়, আমরা ফ্যক্টরীতে কাজের জন্য আসার সময় আন্দোলনকারী ৪০-৫০ জন শ্রমিক আমাদেরকে জোরপূর্বক তাদের সাথে যোগদিতে বাধ্য করে। পরে আমরা ব্যাপারটি বুঝতে পেরে কাজে যোগদান করি। তারা আরো জানায়, কিছু উচ্ছৃঙ্খল শ্রমিক কারখানায় চাকুরীতে ঢুকে কৌশলে নিরীহ শ্রমিকদের নিয়ে আন্দোলন করে টাকা-পয়সা হাতিয়ে নিতে কারখানায় অসন্তোষ সৃষ্টি করে আসছে।
সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন জানান, ডিএনভি ক্লোথিং কারখানার ৫০-৬০ জন শ্রমিককে ছাঁইায়ের প্রতিবাদে ঘন্ট্যাব্যাপী মানববন্ধন পালন করে। এ সময় কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

মো:মামুন মিয়া/১৪/২/১৯

Comments are closed.