rockland bd

ডেসটিনির দুই কর্মকর্তার জামিন স্থগিতের মেয়াদ বৃদ্ধি

0

মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা দুই মামলায় ডেসটিনি গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ রফিকুল আমিন ও ডেসটিনি-২০০০ লিমিটেডের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেনের জামিনে স্থগিতের মেয়াদ বাড়িয়েছেন আপিল বিভাগ। তাদের জামিন মঞ্জুর করে হাইকোর্টের দেয়া আদেশ স্থগিত চেয়ে দুদকের করা এক আবেদনের শুনানি আগামি ১৮ আগস্ট পর্যন্ত মুলতবি করেছেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের আপিল বেঞ্চ। আজ বৃহস্পতিবার এই আদেশ দেয়া হয়। দুর্নীতি দমন কমিশনের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান একথা জানান। দুদকের আইনজীবী আরো জানান, ওই দুই কর্মকর্তার সম্পদ বিবরণী চেয়ে দুদকের দেয়া নোটিসের ভিত্তিতে পদক্ষেপ না নিতে হইকোর্টের দেয়া আদেশও একই সময় পর্যন্ত স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগ। ওই নোটিসের ভিত্তিতে পদক্ষেপ না নিতে হাইকোর্টের দেয়া আদেশ স্থগিত চেয়ে দুদকের করা আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এই আদেশ এসেছে। দুদকের আইনজীবী খুরশীদ বলেন, আপিল বিভাগ তাদের জামিন স্থগিতের মেয়াদ বাড়িয়েছেন। ১৮ আগস্ট বিষয়টি আবার আসবে। এই সময়ের মধ্যে নিয়মিত লিভ টু আপিল করতে বলা হয়েছে। মানি লন্ডারিং ও আত্মসাতের অভিযোগে ২০১২ সালের ৩১ জুলাই রফিকুল আমিন ও মোহাম্মদ হোসেনের বিরুদ্ধে কলাবাগান থানায় আলাদা দুটি মামলা করে দুদক। মামলায় তাদের বিরুদ্ধে প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা পাচার ও আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়। এরপ রফিকুল আমিন ও মোহাম্মদ হোসেন ২০১২ সালের ১১ অক্টোবর ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইলে আদালত তা নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন। পরবর্তীতে নিম্ন আদালতে তাদের জামিন নামঞ্জুর হলে তারা হাইকোর্টে জামিন চেয়ে আবেদন করেন। ওই আবেদনের শুনানি নিয়ে ২০ জুলাই হাইকোর্ট নিম্ন আদালতে পাসপোর্ট জমা রাখার শর্তে দুইজনের জামিন মঞ্জুর করেন। এই আদেশ স্থগিত চেয়ে দুদকের আবেদনের প্রেক্ষিতে গত ৩১ জুলাই আপিল বিভাগ ১১ অগাস্ট পর্যন্ত জামিন স্থগিত করে দেন। এর ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার বিষয়টি শুনানির জন্য ওঠে। ‘নোটিসের কার্যক্রম চলবে’ : গত জুনে রফিকুল আমীন ও মোহাম্মদ হোসেনের সম্পদের বিবরণী দাখিল করতে নোটিস দিয়েছিলো দুদক। তারা হিসাব দাখিলের জন্য ১৫ দিন সময় চেয়ে আবেদন করলে দুদক সাত দিন সময় দেয়; যা শেষ হয় গত ১৪ জুলাই। এ অবস্থায় সম্পদ বিবরণী দাখিলে দেয়া ওই নোটিসের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে ডেসটিনির দুই কর্মকর্তা রিট করেন। এসব আবেদনের শুনানি নিয়ে গত ১ আগস্ট হাইকোর্ট রুলসহ অন্তর্বর্তীকালীন আদেশ দেন। রুল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত ওই নোটিসের ভিত্তিতে কার্যক্রম পরিচালনা থেকে বিরত থাকতে বলা হয় দুদককে। এই আদেশ স্থগিত চেয়ে দুদক পৃথক আবেদন করলে তা বৃহস্পতিবার আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য ওঠে। প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের আপিল বেঞ্চ হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করে ১৮ আগস্ট পর্যন্ত শুনানি মুলতবি করেন।

Leave A Reply