rockland bd

ক্রিমিয়ায় হামলা চালাচ্ছে ইউক্রেন!

0

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ‘সন্ত্রাসী’ কার্যকলাপের জন্য বুধবার ইউক্রেইনকে অভিযুক্ত করেছেন। ইউক্রেইন ক্রিমিয়ায় হামলার চেষ্টা চালিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এর ভিত্তিতেই পুতিন এই অভিযোগ করেছেন।
তবে কিয়েভ ক্রিমিয়ায় আক্রমণের কথা অস্বীকার করেছে।
রাশিয়ার নিরাপত্তা সংস্থা জানিয়েছে, ইউক্রেনের সামরিক গোয়েন্দা বাহিনী ক্রিমিয়ায় ‘সন্ত্রাসী হামলা’ চালালে রুশ বাহিনী তাদের প্রতিহত করে এবং সশস্ত্র হামলাকারীদের হটিয়ে দেয়।
রাশিয়ার নিরাপত্তা সংস্থা দাবি করেছে যে এই ঘটনার ফলে উত্তেজনা বৃদ্ধি পেয়েছে।
কৌশলগত কৃষ্ণ সাগরের উপদ্বীপটিতে ২০১৪ সালে মস্কো অধিকার করে নেয়ার পর প্রথম ওই অঞ্চলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।
খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র।
এফএসবি নিরাত্তা সংস্থা এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ৬ ও ৭ আগস্ট রাতে ‘সন্ত্রাসীদের’ গ্রেফতার করার সময় উভয়পক্ষের সশস্ত্র সংঘর্ষে তাদের এক কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন।
এদিকে ৮ আগস্ট ‘নাশকতামূলক তৎপরতায় লিপ্ত সন্ত্রাসীদের’ সঙ্গে বন্দুকযুুদ্ধে এক রুশ সৈন্য নিহত হয়েছে। ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এই সন্ত্রাসীদের পাঠিয়েছিল।
পুতিন বলেন, ‘এগুলো অত্যন্ত আশঙ্কজনক খবর। মূলত আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী আমাদের ভূখ-ে চালানো একটি হামলাকে প্রতিহত করেছে। ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় নাশকতা চালানোর জন্য দলগুলোকে পাঠিয়েছিল।’
ক্রেমলিন নেতা ‘সন্ত্রাসী কার্যকলাপের’ জন্য কিয়েভ কর্তৃপক্ষকে অভিযুক্ত করেন।
হামলাকারীদেরকে এই ঘটনায় দুজন রুশ সৈন্যের মৃত্যুর পরিণাম ভোগ করতে হবে বলে তিনি হুঁশিয়ার করেন।
পুতিন বলেন, ‘এই সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় রুশ বাহিনীর দুই সৈন্য নিহত হয়েছেন। আমরা কোন অবস্থাতেই এ ধরনের ঘটনাকে এড়িয়ে যাব না।’
রুশ প্রেসিডেন্ট আরো বলেন, ‘এটা অত্যন্ত বিপজ্জনক খেলা। আমরা অবশ্যই আমাদের অবকাঠামো ও নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য যা কিছুর প্রয়োজন সবই করব। আমরা আমাদের রাষ্ট্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত কররার জন্য অতিরিক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’
২০১৪ সালের মার্চ মাসে রাশিয়া ইউক্রেনের কাছ থেকে ক্রিমিয়া উপদ্বীপ দখল করে নেয়ার পর থেকে মস্কো ও কিয়েভের মধ্যে চরম উত্তেজনা, তিক্ততা ও বৈরিতা বিরাজ করছে।
রাশিয়ার সমর্থিত প্রেসিডেন্ট ভিক্টর ইয়ানুকোভিচকে উৎখাত করার পর এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।
ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট পেত্রো পোরোশেঙ্কো মস্কোর এই দাবিকে ‘কা-জ্ঞানহীন ও ক্ষ্যাপাটে’ বলে উল্লেখ করেন।

Leave A Reply