rockland bd

বিষ মুক্ত লাউ চাষ করে ভাগ্য বদলেছে সাবিনার

0

বিষ মুক্ত লাউ চাষ করে ভাগ্য বদলেছে সাবিনার

উপজেলা প্রতিনিধি, কাউনিয়া (বাংলাটুডে) : কাউনিয়া উপজেলার হারাগাছ ইউনিয়নের নাজিরদহ গ্রামের সাবিনা বেগম অর্গানিক পদ্ধতিতে লাউ চাষ করে সকলকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে।
বাম্পার ফলনে তার মুখে হাসির ঝিলিক ফুটে উঠেছে। এলাকায় সাবিনা এখন সফল লাউ চাষি হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে।
সরেজমিনে গিয়ে কথা হয় সাবিনার সাথে। যে বয়সে তার খেলাধুলা করে সময় কাটানোর কথা সেই বয়সে তার বিয়ে হয় নাজিরদহ গ্রামের আবুল সরকারের দিনমজুর এরশাদ এর সাথে। সংসার কি তা সে ঠিক ভাবে বুঝে উঠেনি। বাবা-মা সামাজিক অসচেতনতার কারনে তাকে অল্প বয়সে বিয়ে দিয়ে দেয়।
নতুন সংসারে এসে দেখে তার স্বামীর নুন আনতে পান্তা ফুরায় অবস্থা। যেদিন কাজ পায় সেদিন চুলায় হাড়ি চড়ে, তা না হলে উপস থাকতে হয়। এলাকায় বেশীর ভাগ সময় কাজ থাকেনা। এরই মধ্যে তাদের কোল জুরে ২টি সন্তান আসে।
অভাবের সংসারে ছেলে মেয়েকে কিভাবে মানুষ করবে তা ভাবতে থাকে সাবিনা। স্বামী স্ত্রী মিলে পরামর্শ করে কিভাবে সংসারে আয় বৃদ্ধি করা যায়। এই ভাবনা থেকে প্রতিবেশির পরামর্শে আরডিআরএস রি-কল ২০২১ প্রকল্পের ভাটিয়াটারি গ্রাম উন্নয়ন সংগঠনের সিবিও মিটিং এ যায়। সেখানে সে তার সংসারের অভাব অনটনের কথা শেয়ার করে। তাকে তার বাড়ির পাশের জমিতে সবজি চাষের পরামর্শ দেন।
সাবিনার কৃষি বিষয়ে কারিগরী দক্ষতা ও জ্ঞানের অভাব থাকায় আরডিআরএস বাংলাদেশ রিকল ২০২১ প্রকল্প ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের যৌথ উদ্যোগে পরিবেশ বান্ধন সবজি চাষ বিষয়ে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করে দেয়।
সাবিনা প্রশিক্ষণে অংশগ্রহন করে সাবিনা তার স্বপ্নকে বাস্তবায়নের জন্য নতুন উদ্যোমে আরডিআরএস এর সহযোগিতায় শশুরের দেয়া ১০ শতক জমিতে অর্গানিক পদ্ধতিতে লাউ চাষ শুরু করে। প্রথম বারেই সে বাজি মাত করে। জমিতে জৈব্য সার হিসাবে কেচোঁ সার এবং কিটনাশকের পরিবর্তে পেষ্টিসাইড হিসাবে ফেরোমেনান ট্রাপ ব্যাবহার করায় উৎপাদন খরচ অনেক কমে যায় এবং উৎপাদন দ্বিগুন বৃদ্ধি পায়।
১০ শতক জমিতে লাউ চাষ করতে তার ব্যয় হয়েছে ৪১০০ টাকা। সে লাউ বিক্রি করেছে ১১৩০০ টাকা। এই আয় দিয়ে সে সংসার পরিচালনা ও ছেলে মেয়ের লেখাপড়ার কাজে ব্যয় করছে। সাবিনার মেয়ে এখন ৭ম শ্রেণী ও ছেলে ৩য় শ্রেণীতে পড়াশুনা করছে।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাইফুল আলম জানান, কৃষি উৎপাদনে নারীর অবদান অপরিসীম। তাদের অবদানকে কোনভাবে অস্বীকার করা যায় না। বাংলাদেশে কৃষি উৎপাদন এবং অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে অনন্য ভুমিকা পালন করে আসছে গ্রামের নারী কিষানীরা। অতিরিক্ত সার, কীটনাশক ব্যবহারের ফলে এবং জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে স্বাভাবিক নিয়মে কৃষি কাজের উপর বিরুপ প্রভাবে ফসলের উৎপাদন দিন দিন হ্রাস পাচ্ছে। বর্তমানে অর্গানিক পদ্ধতিতে চাষ করার ফলে সফল যেমন বৃদ্ধি পাচ্ছে সেই সাথে বিশ মুক্ত সবজি পাওয়া যাচ্ছে। সাবিনার মতো অনেক নারী এখন বাড়ির আঙ্গিনায় সবজি চাষ করে সফলতা পেয়েছে।

সারওয়ার আলম মুকুল/আর এইচ

Comments are closed.