rockland bd

যিনি হাসতে ও হাসাতে ভালবাসেন

0

শাহজাহান সিরাজ, গাইবান্ধা থেকে
রবিবার, বাংলাটুডে টোয়েন্টিফোর:
হাসির মানুষ, রঙের মানুষ, গানের মানুষ’ সর্বপরি একজন মঞ্চ কাঁপানো শক্তিমান অভিনেতার নাম এম.এ মজিদ। ১৯৮০ সাল থেকে তাঁর নিয়মিতভাবে থিয়েটারে কাজ করা। “বিখ্যত সমাজ” নাটকের মধ্য দিয়ে তাঁর অভিনয় জীবনের পথ চলা। এই মানুষটি সম্পূর্ণ মৌলিক এবং সুস্থ ধারার লোকজ এবং ভাওয়াইয়া গানের কমপক্ষে ১৫ থেকে ২০টি অডিও ক্যাসেট তৈরি করেন। পেশায় রংপুর সিটি কর্পোরেশনের সৎ নিবেদিতপ্রাণ একজন কর্মচারী হলেও দেশীয় এবং গ্রামীণ সংস্কৃতি চর্চায় এবং রংপুর অঞ্চলের মানুষের প্রাণের গান ভাওয়াইয়াকে ভালবেসে বাংলাদেশের প্রথম মিউজিক ভিডিও এ্যালবাম “হামার রংপুর” নির্মাণ করেন গুণী এই মানুষটি। এরপর একাধাওে ৭০টির অধিক মিউজিক ভিডিও এ্যালবামে পরিচালনার পাশাপাশি মজার মজার সংলাপসহ হাসির অভিনয় করে দেশে-বিদেশে কোটি কোটি মানুষের অন্তরে প্রিয় তারকার খ্যাতি অর্জন করেছেন এম.এ মজিদ। রংপুরের হাজীপাড়া (শাপলা চত্বর) এলাকার মোঃ তফেল উদ্দিন এবং মৃত মজিতন নেছার ঘরে ১৯৬৬ খ্রিস্টাব্দে জন্মগ্রহণ করেন গুনী এই শিল্পী। মোছাঃ ফাতেমা আক্তার লিলি’র সাথে বিবাহ বন্ধনের পর সংসার জীবনে ২ ছেলে ২ মেয়েকে নিয়ে তাদের ঘর-গেরস্থলি।
অভিনয়প্রিয় এই মানুষটি বর্তমানে রংপুর নাট্য কেন্দ্রের সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। বহুবার দেশের বাহিরে গিয়ে নাটক করেছেন। রংপুর বেতারের নাট্যশিল্পী এবং নাট্যকার হিসেবেও তালিকাভুক্ত রয়েছেন। এম.এ মজিদ নিজে হাসতে ভালবাসেন, অন্যকে হাসাতে পারলে নিজেকে ধন্য মনে করেন। মানুষ হয়ে মানুষের সাথে প্রতারণা করাকে খুবই ঘৃণা করেন। ঝগড়া-ফাঁসাদ, মামলা-হামলা সবসময় এড়িয়ে চলেন। কোনো পদ কিংবা পদবীর লোভ না করে একজন নিবেদিত প্রাণ সংস্কৃতি কর্মী হিসেবেই কাজ করে চলেছেন প্রচার বিমূখ এই গুণী শিল্পী এম.এ মজিদ। আমরা এই গুনীজনের শারীরিক সুস্থতাসহ দীর্ঘায়ূ কামনা করছি।
রাকিব

Comments are closed.