rockland bd

চীন ভ্রমণে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের সতর্ক বার্তা

0

চীন ভ্রমণে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের সতর্ক বার্তা

বিদেশ ডেস্ক
শুক্রবার, বাংলাটুডে টোয়েন্টিফোর:
চীন সফরের ক্ষেত্রে ‘বাড়তি সতর্কতা’ অবলম্বনের জন্য মার্কিন নাগরিকদের পরামর্শ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতর। চীনে কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকজন নাগরিকের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রেক্ষাপটে এ সতর্কতা দেওয়া হলো।
মার্কিন প্রশাসনের সতর্ক বার্তায় অভিযোগ করা হয়েছে, ইচ্ছাকৃতভাবে চীন সেদেশে বসবাসরত মার্কিন নাগরিকদেরকে দেশ ত্যাগে বাধা দিচ্ছে।
চীনে দুই কানাডীয় নাগরিক আটক রয়েছেন। তারা হলেন, সাবেক কূটনীতিক মাইকেল কোভরিগ ও ব্যবসায়ী মাইকেল স্পাভোর।
সম্প্রতি চীন ও কানাডার সম্পর্কে টানাপড়েন শুরুর পর গত মাসে তাদের গ্রেফতার করা হয়। বৃহস্পতিবার (৩ জানুয়ারি) চীনের শীর্ষ প্রসিকিউটর বলেছেন, ‘সন্দেহাতীতভাবে তারা আইন লঙ্ঘন’ করেছে।
আলাদাভাবে, ‘অর্থনীতি সংশ্লিষ্ট অপরাধ’ সংঘটনের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে তিন মার্কিন নাগরিকের বিরুদ্ধে। নভেম্বর থেকে তাদের ওপর চীন ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে। এর মধ্যেই মার্কিন নাগরিকদের জন্য চীন সফরে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র সরকার।
যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরের বিবৃতিতে সতর্ক করে বলা হয়, ‘অভিযোগের ব্যাপারে তথ্য অথবা কনস্যুলার সুবিধা না দিয়েই মার্কিন নাগরিকদের আটক করা হতে পারে।’
এর আগে গত বছরের জানুয়ারিতে ইস্যুকৃত আরেক বিবৃতি বলা হয়েছিল ‘আইনি প্রক্রিয়ায় জড়িত না থাকা ব্যক্তি কিংবা সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে দীর্ঘদিনের জন্য ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার আওতায় রেখে দেওয়া হতে পারে। এসব মানুষের পরিবারের সদস্য ও সহকর্মীদেরকে চীনা আদালতের সঙ্গে সহযোগিতা করতে বাধ্য করা হতে পারে।’
মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের নতুন বিবৃতিতে দ্বৈত নাগরিকত্ব থাকা মার্কিনিদেরও সতর্ক করা হয়েছে। চীনের আইন অনুযায়ী দ্বৈত নাগরিকত্ব অনুমোদন করা হয় না।
বিবৃতিতে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়, চীনে মার্কিন-চীনা দ্বৈত নাগরিকদের আটক করা হতে পারে এবং তাদেরকে সহযোগিতার সুযোগ যুক্তরাষ্ট্রকে নাও দেওয়া হতে পারে।
গত ১ ডিসেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে প্রত্যর্পণের জন্য কানাডায় প্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ের প্রতিষ্ঠাতার মেয়ে এবং কোম্পানির সিএফও মেং ওয়ানঝুকে গ্রেফতার করা হয়।
ইরানের বিরুদ্ধে থাকা মার্কিন নিষেধাজ্ঞা ভঙ্গ করে আর্থিক লেনদেনের প্রকল্প তৈরিতে যুক্ত থাকার অভিযোগে অভিযুক্ত হয়েছেন হুয়াওয়ের সিএফও। সেই সূত্রে তাকে যুক্তরাষ্ট্রের অনুরোধে গ্রেফতার করে কানাডা।
পরে অবশ্য কানাডীয় আদালতে জামিন পেয়েছেন ওয়ানঝু। চীন সেসময় বলেছিল, ওয়ানঝুকে আটক কারার পরিণতিতে কানাডাকে চরম মূল্য দিতে হবে।

আর এইচ

Comments are closed.