rockland bd

ঠাকুরগাঁওয়ে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে ঘরে আগুন

0

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি
শুক্রবার, বাংলাটুডে টোয়েন্টিফোর:
ঠাকুরগাঁওয়ে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে ঘরে আগুন দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সদর উপজেলার আকচা ইউনিয়নের বৈকন্ঠপুর গ্রামের মোকছেদুর রহমানের কাছে এ অভিযোগ পাওয়া যায়।
জানা যায়, সদর উপজেলার আকচা ইউনিয়নের বৈকন্ঠপুর গ্রামের মোকছেদুর রহমানের সাথে একই এলাকার আবদুল কাদেরের সাথে ৩/৪ বিঘা জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে। গত ০১/১২/২০১৮ ইং তারিখে আবদুল কাদের ও তার পরিবারের লোকজন হঠাৎ করেই রাতে তাদের জমি সংলগ্ন ধরে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে বাশের ও খড়ের তৈরী ঘরটি পড়ে যায়। এ ঘটনায় বাদি হয়ে আব্দুল কাদের পরে ঠাকুরগাঁও সদর থানায় মোকছেদুর, আলতাফুর, রুবেল ও আজিজুল হককে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করে। এদিকে গত ২৩/১২/২০১৮ ইং তারিখে ঐ একই জায়গায় আব্দুল কাদেরের ভাতিজা ফরিদের বাসায়ও আগুন দেয়া হয়। এতে তার দুটি ঘর, আসবাবপত্রসহ সব কিছু পুড়ে যায়। তবে এ ঘটনায় এখনও কোন অভিযোগ হয়নি। এ ঘটনার পর পরই ঐ এলাকায় চা ল্যেও সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে ঘরে আগুন দেওয়ার ঘটনা এটি। এর আগেও এমন ঘটনা ঘটেছে। এটি জমি নিয়ে বিরোধের কারণে হতে পারে বলেও ধারণা তাদের। তবে ক্ষতিগ্রস্থ ফরিদ জানান, গত ০১ তারিখের অগ্নিকান্ডের ঘটনাটি জমি জমার জের ধরে ঘটেছে। তবে ২৩ ডিসেম্বরের আমার বাসার অগ্নিকান্ডটি কিভাবে হলো তা আমি, নিজেও জানি নাহ। তবে চুলার আগুন থেকে এ আগুনের সুত্রপাত হতে পারে বলে ধারণা করছি। এ ঘটনার সাথে কারো সম্পৃক্ততা নেই বলেও জানান তিনি।
এ ব্যাপারে সদর উপজেলার আকচা ইউনিয়নের বৈকন্ঠপুর গ্রামের মোকছেদুর রহমান জানান, জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে আমাকে ও আমার পরিবারের লোকজনকে ঘায়েল করতে নিজের ঘর পুড়িয়ে দিয়ে আব্দুল কাদের মিথ্যা মামলা দিয়েছে আমাদের বিরুদ্ধে। এটা তার ও তার পরিবারের পেশা। মানুষের জমি দখল করে। মেম্বার হওয়ায় ক্ষমতা খাটিয়ে এসব অপকর্ম করে কাদের। বার বার ঘর পুড়িয়ে আমাদের বিরুদ্ধে মামলা দেয়া ও হয়রানি করার অপচেষ্টা করছে কাদের বলেও অভিযোগ করেন মোকছেদুর রহমান।
এ বিষয়ে স্থানীয় আকচা ইউপি চেয়ারম্যান সুব্রত কুমার বর্মন জানান, এই অগ্নিকান্ডে ঘটনাগুলো পরিকল্পিত এমন অভিযোগ রয়েছে। তবে ২৩ডিসেম্বরর অগ্নিকান্ডে কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। ১লা ডিসেম্বরের অগ্নিকান্ডের ঘটনা নিয়ে বিতর্ক ও অবিযোগ রয়েছে পাল্পাপাল্টি। এটা জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার একটা প্রক্রিয়া মাত্র। তবে যেহেতু আদালতে জমি নিয়ে মামলা বিচারাধীন রয়েছে সেহেতু আদালত জমির বিষয়টি বিবেচনা করবেন বলেও জানান ইউপি চেয়ারম্যান।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত মেম্বার আব্দুল কাদের কে ফোন করা হলেও তাকে মুঠোফোনে পাওয়া যায়নি।
মো. আসাদুজ্জামান আসিক/আর বি

Comments are closed.