rockland bd

শামসুল হক টুকু-আবু সাইয়িদ দুজনেই আত্মবিশ্বাসী

0

সাঁথিয়া (পাবনা) প্রতিনিধি
বুধবার, বাংলাটুডে টোয়েন্টিফোর:
পাবনা ১ (সাঁথিয়া-বেড়া আংশিক) আসনে দুই প্রতিদ্বন্দ্বি হচ্ছেন, নৌকার প্রার্থী সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এ্যাড. শামসুল হক টুকু এমপি ও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বঞ্চিত গণফোরামে যোগদানকারী ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক আবু সাইয়িদ । জামায়াতের আমীর ও সাবেক মন্ত্রী মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর ছেলে ব্যারিস্টার নাজিবুর রহমান মোমেনের নামে প্রতীক (আপেল) বরাদ্দ থাকলেও তিনি ভোটের প্রচারণায় নেই। তিনি নির্বাচন করবেন না বলে জানান সাঁথিয়া উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারি মোস্তফা কামাল মানিক। অন্যান্য প্রার্থীদের প্রচার প্রচারনা তেমন দৃশ্যমান নয়।
পাবনার-১ আসনটি বরাবরই গুরুত্তপূর্ণ আসন। এ আসন থেকে যিনিই সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন তিনিই মন্ত্রীত্বের স্বাদ পেয়েছেন। মন্ত্রী হয়েছেন মন্জুর কাদের, অধ্যাপক আবু সাইয়িদ, মওলানা মতিউর রহমান নিজামী ও এ্যাড. শামসুল হক টুকু। বর্তমানে ধানের শীষ নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী অধ্যাপক আবু সাইয়িদ ২০০১ সাল পর্যন্ত তিনি এ আসনে নৌকার মাঝি ছিলেন। ওয়ান ইলিভেনে বিতর্কিত ভূ’মিকার কারণে ২০০৮ সালে তিনি দল থেকে ছিটকে পড়েন। এরপর এ আসনে নৌকার হাল ধরেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক জিএস ও পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড. শামসুল হক টুকু। ২০০৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ্যাড. শামসুল হক টুকু নৌকা প্রতীক নিয়ে জোটের প্রার্থী জামায়াতের আমীর মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীকে পরাজিত করে বিজয়ী হন এবং প্রথমে বিদ্যুৎ,জ্বালানী ও খণিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী এবং পরে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বপালন করেন। এবার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবু সাইয়িদ নৌকার মনোনয়ন না পেয়ে গণফোরামে যোগদান করে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনের মাঠে নেমেছেন। নির্বাচনী মাঠে দুই প্রার্থীই ভোটারদের মাঝে নানা প্রতিশ্রুতি দিয়ে যাচ্ছেন। প্রচার প্রচারনায় শুরু থেকেই এগিয়ে থাকা আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত। এ আসনের বর্তমান এমপি নৌকার প্রার্থী এ্যাড. শামসুল হক টুকু প্রতিদিনই সভা-সমাবেশ করছেন। ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যাচ্ছেন। বিগত ১০ বছরে আওয়ামী লীগ সরকারের অভুত উন্নয়নচিত্র তুলে ধরছেন এবং সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য আবারো নৌকাকে বিজয়ী করার আহবান জানান। এদিকে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী অধ্যাপক আবু সাইয়িদকে এখনও নির্বাচনের মাঠে তেমন সরব দেখা যাচ্ছেনা। ধানের শীষের পোস্টার লাগানো হয়নি অধিকাংশ স্থানেই। নিজ বাড়ি বেড়ায় এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি অভিযোগ করেন তার প্রচারণায় নানাভাবে বাধা দেয়া হচ্ছে । গত ১৩ ডিসেম্বর সাঁথিয়ার উদ্দেশ্যে প্রচারণায় আসলে তার গাড়ীতে দুর্বত্তরা হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে এবং বিভিন্নস্থানে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রচার অফিস ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের অভিযোগে বিএনপি-জামায়াতের শতাধিক নেতাকর্মী আসামী ও গ্রেফতার হ্ওয়ায় তার কর্মী সমর্থকরা আতংকের মধ্যে রয়েছে। অধ্যাপক আবু সাইয়িদ জানান, নির্বাচন সুষ্ঠু হলে তিনি বিপুল ভোটে বিজয়ী হবেন। অপরদিকে এ্যড.শামসুল টুকু বলেন, বিপুল ভোটে বিজয়ের ব্যাপারে তিনি শতভাগ আশাবাদী। এছাড়া এ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী সরদার সাজাহান এবং গণসংহতি আন্দোলনের জুলহাস নাইন নির্বাচনের মাঠে প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন।
আব্দুদ দাইন/আর বি

Comments are closed.