rockland bd

শার্শায় বিএনপি নেতাকর্মীদের হুমকি ও মারধরের অভিযোগ

0

যশোর প্রতিনিধি
সোমবার, বাংলাটুডে টোয়েন্টিফোর:
শার্শার স্থানীয় বিএনপি নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করে বলেছেন, নির্বাচনকে ঘিরে সরকার দলীয় সন্ত্রাসীরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। বিএনপির কোন নেতাকর্মী যেন বাজারে, রাস্তায় বা চায়ের দোকানে না বসে সে জন্য নির্দেশনা দিয়েছে আওয়ামী লীগের নেতারা।
কথা না শুনলে মারপিট ও হাত-পা ভেঙ্গে দেয়ার হুমকি দিয়েছে তাঁরা।
একাধিক সূত্র জানায়, শার্শার ১১ টি ইউনিয়নে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে আওয়ামী লীগ। তাঁরা বিএনপির যাকে পাচ্ছে তাকেই মারপিট করছে। গত দুদিনে শার্শা উপজেলার উলাশীর পানবুড়ি ও হাড়িখালি গ্রামে বেশি হামলার ঘটনা ঘটেছে।
পানবুড়ি গ্রামের ওয়ার্ড বিএনপি সাধারণ সম্পাদক অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য নাসির হোসেন সন্ধ্যায় পানবুড়ি মসজিদ থেকে বের হলে তাকে বেদম মারপিট করে সন্ত্রাসীরা। এ সময় তাঁরা বিএনপি নেতা বকুলের দোকানও ভাঙচুর করে ও একটি চায়ের দোকানটি বন্ধ করে দেয়।
ওই দোকানে বিএনপির নেতাকর্মীদের যাতায়াত রয়েছে। এছাড়া ভাঙচুর কর হয় পানবুড়ি বিএনপি অফিস। এছাড়া হাড়ি খালি বাজারে বিএনপির নেতাকর্মীদের উপর হামলা চালানো হয়। এসময় তারা ভাঙচুর করে বিএনপি নেতা দবিরের বাড়ির গেট।
গত শনিবার সন্ধ্যায় একইভাবে আওয়ামী লীগের সমর্থকরা হাড়িখালি বাজারে তান্ডব চালায়। তারা পল্লী চিকিৎসক বিএনপি কর্মী আমির হামজাকে তার চেম্বার থেকে বের করে এনে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে।
উলাশী ইউনিয়নে এসব কর্মকান্ডে নেতৃত্ব দিচ্ছেন স্থানীয় এক জনপ্রতিনিধি।
অপর দিকে আওয়ামী লীগের সমর্থকরা খলসি বাজারে বিএনপি নেতা লিমন হোসেন (৩৫) কে মারপিট করে ডান হাত ভেঙ্গে দিয়েছে।
উত্তর শার্শার আব্দুল জলিল মাস্টার নামে এক ব্যক্তিকে বেদম মারপিট করে সরকার দলীয়রা। বোমা ফাটিয়ে ত্রাস সৃষ্টি করা হয় জিরেনগাছা গ্রামে।
এছাড়া বাগআঁচড়া, কায়রা, গোগা, পুটখালি, বেনাপোল, বাহাদুরপুর, ডিহি, লক্ষনপুর, নিজামপুর, শার্শার নাভারন, রাজনগর, শ্যামলাগাছি গ্রামেও আওয়ামী লীগের তান্ডব চলে।
সরেজমিনে দেখা গেছে, সন্ধ্যার পর শার্শার সকল বাজার জনশূন্য হয়ে পড়ছে। সরকারপন্থীরা গ্রামে ঢুকে বিএনপি নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে হুমকি দিচ্ছে। ভয় দেখাচ্ছে ভোট পর্যন্ত বাড়ি থেকে না বের হওয়ার জন্য।
শার্শার বর্তমান পরিস্থিতিতে বিএনপি নেতাকর্মীদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষও আতঙ্কিত। তারা এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক ও জেলা পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ ও সহযোগিতা কামনা করেছেন।

সোহেল রানা/আর এইচ

Comments are closed.