rockland bd

রাজাকার ও তাদের সন্তানরা যেন সংসদে যেতে না পারে : শাহরিয়ার কবির

0

নীলফামারী জেলা প্রতিনিধি
রবিবার, বাংলাটুডে টোয়েন্টিফোর:
একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক শক্তি ও আগুন সন্ত্রাসীদের ভোট না দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন ‘আমরা সকলে ভোট দেবো স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তিকে। মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক শক্তি ও আগুন সন্ত্রাসীদের ভোট দেবনা। রাজাকার ও তাদের সন্তানরা যেন সংসদে যেতে না পারে সে দিকে সবাইকে খেয়াল রাখতে হবে।’
গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় নীলফামারী শহরের জেলা শিল্পকলা একাডেমি চত্ত্বরে ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনার অভিযাত্রা’ শীর্ষক এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তবে তিনি ওই আহ্বান জানান।
বিএনপিকে পাকিস্তানী আইএসআইএ’র এজেন্ট উল্লেখ্য করে লেখ ও সাংবাদিক শাহরিয়ার কবির বলেন, ‘এবারের নির্বাচনে পাকিস্তানী গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের এজেন্ট হয়ে মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী সাম্প্রদায়িক শক্তি জামায়াত-শিবিরকে সঙ্গে নিয়ে ভোটের মাঠে নেমেছে বিএনপি। এদের প্রতিহত করতে হবে স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তিকে।
ক্ষমতার লালসা মানুষকে কতটা নীচে নামাতে পারে, তার একমাত্র উদাহরণ ড. কামাল হোসেন মন্তব্য করে তিনি বলেন , ড. কামলা হোসেন, আপনার কোন চেহারাকে রাজনীতির চেহারা বলব? আপনি যে ৭২-এর সংবিধান লিখেছিলেন সেই কামাল হোসেন, না আজকে সংবিধানের হত্যাকারীদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন সেই কামাল হোসেন। মুক্তিযুদ্ধের কটাক্ষকারীদের আইনের আওতায় আনা উচিত। আইন করে মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে কথা বলা বন্ধ করতে হবে। এজন্য সবাইকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাসহ স্বাধীনতাসহ মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিকে ভোট দিতে হবে।’
একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির নীলফামারী জেলার সভাপতি মমতাজ উদ্দিনের সভাপতিত্বে সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় সহ সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক আব্দুল গফ্ফার, সহ প্রচার সম্পাদক সাইফ উদ্দিন, নীলফামারী জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ফজলুল হক, সিরাগঞ্জের উল্লাপাড়া হিন্দু পল্লীর পূর্নিমা শীল, মাদ্রাসা শিক্ষক ওয়াজেদ আলী, সংস্কৃতিকর্মী আহসান রহীম মঞ্জিল, হিন্দু বৌদ্ধ খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের প্রেসিডিয়াম সদস্য উত্তম কুমার রায়, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির নীলফামারী জেলার সাধারণ সম্পাদক সহিদুল ইসলাম প্রমুখ।
সিরাগঞ্জের পূর্নিমা শীল বলেন, আমি একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ দেখিনি। তবে ২০০১ সালে জামায়াত শিবিরের নির্যাতন ও ধর্ষণ প্রত্যক্ষ করেছি।
তিনি নিযেই ওই নির্যাতনের শিকার উল্লেখ করে বলেন, ‘আর কোন পূর্নিমা নির্যাতন ও ধর্ষণের শিকার না হউক আমি সেটা চাই না। জামায়াত শিবির রাজাকার ও তাদের পৃষ্ঠপোষক বিএনপির ধানের শীষে ভোট দিবেন না। ওরা ক্ষমতায় এলে নূতন প্রজম্মের পূর্নিমারা আবারো ওই সহিংসতার শিকার হবেন। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে ওই জালেমদের হাত থেকে দেশকে বচাই।’
বি.কে.চক্রবর্তী/রাকিব

Comments are closed.