rockland bd

লালমনিরহাটে সুজন আয়োজনে জনগনের মুখোমুখি প্রার্থীরা

0

সুজন আয়োজিত অবাধ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চাই শীর্ষক ‘জনগনের মুখোমুখি অনুষ্ঠানে’ এভাবে হাত উঁচিয়ে অঙ্গীকার করেন বিভিন্ন দলের প্রার্থীরা।

লালমনিরহাট প্রতিনিধি,
মঙ্গলবার, বাংলাটুডে টোয়েন্টিফোর:
নির্বাচিত হলে ‘দুর্নীতিমুক্ত কার্যকর ও জনকল্যান মূলক শাসন ব্যবস্থ্যা গড়ে তোলার লক্ষে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করবো” বলে অঙ্গীকার করেছেন লালমনিরহাট-৩ (সদর) আসনের প্রার্থীরা।
আজ মঙ্গলবার বিকেলে লালমনিরহাট শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে সুজন (সুশাসনের জন্য নাগরিক) আয়োজিত অবাধ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চাই শীর্ষক ‘জনগনের মুখোমুখি অনুষ্ঠানে’ এই অঙ্গীকার করেন বিভিন্ন দলের প্রার্থীরা।
তবে ওই অনুষ্ঠানে একাদশ জাতীয় সংসদ নিবার্চনে লালমনিরহাট- ৩ আসন থেকে অংশগ্রহনকারী চার প্রার্থীর মধ্যে মহাজোট মনোনীত প্রার্থী জাতীয় পার্টির কো- চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের উপস্থিত হননি।
এতে জনগনের বিভিন্ন প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছিলেন ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত বিএনপি প্রার্থী ও সাবেক উপমন্ত্রী অধ্যক্ষ আসাদুল হাবিব দুলু, বাসদ-এর প্রার্থী আজমুল হক পাটোয়ারী পুতুল, ইসলামী শাসনতন্ত্রের প্রার্থী মোকছেদুল ইসলাম। তারা জনগনের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেয়ার পাশাপাশি নানা প্রতিশ্রুতিও দেন।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন লালমনিরহাট সুজন সভাপতি ড. শফিকুল ইসলাম কানু, অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সুজনের কেন্দ্রিয় সমন্বয়কারী দিলীপ কুমার সরকার ও রংপুর বিভাগীয় সমন্বয়কারী রাজেস দে রাজু।
অনুষ্ঠানের শুরুতে সুজনের দেয়া নিবার্চনী প্রতিশ্রুতি সম্বলিত কাগজে স্বাক্ষর করেন প্রার্থীরা। এসব লিখিত প্রতিশ্রুতির মধ্যে ছিল- নিবার্চিত হলে ‘দুর্নীতিমুক্ত কার্যকর ও জনকল্যান মূলক শাসন ব্যবস্থ্যা গড়ে তোলার লক্ষে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহন করবো, নিবার্চনের পরাজিত হলে গণরায় মাথা পেতে নিবো, বিজয়ী প্রার্থীকে এলাকার সার্বিক উন্নয়নে সহযোগিতা করবো, সরকার বা বিরোধী দল যেখানে অবস্থান করিনা কেন সবসময় সংসদকে কার্যকর রাখার জন্য সংসদ বর্জনের বিপক্ষে অবস্থান নিবো”।
তবে এমন বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি সম্বলিত অঙ্গীকারপত্রে প্রার্থীরা স্বাক্ষর করলেও একাদশ সংসদ নিবার্চনে ‘অবাধ নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ” এখন পর্যন্ত নেই বলে অভিযোগ তুলেন বিএনপি প্রার্থী আসাদুল হাবিব দুলু।
এদিকে প্রার্থীদের পাশাপাশি অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া বিভিন্ন শ্রেণীপেশার ভোটাররাও সেখানে সুজনের দেয়া শপথ বাক্য পাঠ করেন। এতে ‘কোন অর্থ কিংবা কোন কিছুর উপর অন্ধভক্ত হয়ে ভোট না দেয়ার পাশাপাশি যুদ্ধাপরাধী, নারী নির্যাতনকারী, মাদক ব্যবসায়ী, চোরকারবারী, ঋৃনখেলাপী, বিলখেলাপী, ধর্ম ব্যবসায়ী, ভুমি দস্যু, পরিবেশ ধ্বংসকারী, কালো টাকার মালিক, কোন অসৎ, অযোগ্য ও গণবিরোধী ব্যক্তিকে ভোট দিবো না, দিবো না, দিবো না বলে শপথ করেন ভোটাররা।
অনুষ্ঠানে প্রার্থীদের নিজ এলাকার উন্নয়নসহ তিস্তা ও ধরলা ভাঙন ঠেকাতে কার্যকর উদ্যোগ, বুড়িমারী স্থলবন্দর হতে আন্তনগর ট্রেন, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় লালমনিরহাটের পরিত্যাক্ত বিমানবন্দর চালুসহ বিভিন্ন দাবি তুলে ধরেন ভোটারার।
এসময় ভোটারদের মধ্যে ভাষা সৈনিক আব্দুল কাদের ভাসানী, অ্যাড. চিত্ত রঞ্জন রায়, অ্যাড আঞ্জুমান আরা বেগম শাপলা, উপেন্দ্র নাথ দত্ত, আব্দুল্লাহ প্রার্থীদের কাছে তাদের এসব দাবি জানায়।

মো: আশিকুর রহমান ডিফেন্স/আর এইচ

Comments are closed.