rockland bd

ফুলবাড়ীতে কনকনে ঠান্ডায় জন-জীবনে দূর্ভোগ

0

ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি
সোমবার, বাংলাটুডে টোয়েন্টিফোর
কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে গত দুই দিন ধরে আবহাওয়া জনিত কারণে সূর্যের দেখা মেলেনি। ঘন কুয়াশা বেশি না থাকলেও কনকনে ঠান্ডায় কাহিল হয়ে পড়েছে উত্তর জনপথের সাধারণ মানুষ।
অন্যদিকে হিমালয়ের বরফ ছোঁয়া কনকনে ঠান্ডা বাতাসে জন-জীবনে দুর্ভোগ নেমে এসেছে। এ অবস্থায় গরম কাপড়ের অভাবে কষ্টে সব চেয়ে বেশি কাহিল হয়ে পড়েছেন দিনমজুর ও ছিন্নমুল শ্রেনীর মানুষজন।
সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছে এ উপজেলার ধরলা অববাহিকার অর্ধ শতাধিক চর ও দ্বীপ চরের ২০ হাজার মানুষ। কনকনে ঠান্ডা দীর্ঘ স্থায়ী হলে এ অঞ্চলের দিনমজুর ও হতদরিদ্র পরিবারের মানুষজন গরম কাপড়ের অভাবে সবচেয়ে বেশি কষ্ট পাচ্ছে শিশু, নারী ও বৃদ্ধরা।
দুই দিনে শীতের প্রকোপ দেখা দেওয়ায় ফুটপাতের গরম কাপড়ের দোকানের পাশাপাশি বিপনী-বিতান গুলোতে ভিড় করছে মানুষজন।
ফুটপাতে গরম কাপড় বিক্রেতা হারুণ-অর-রশিদ ও আলমগীর হোসেন জানান, গত কয়েকদিন ধরে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত গরম কাপড় বিক্রিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছি।
ফুলবাড়ী সদরের মুকুল, বাশেদ,নাওডাঙ্গার ঠেঁলা চালক বাবলু চন্দ্র ও ভ্যান চালক জহুরুল ইসলাম জানান,গত দুই দিন দিন সুর্যের দেখা মেলেনি। ঠান্ডায় বাঁচি না। গরম কাপড়ও নাই। কনকনে ঠান্ডায় জীবিকার তাগিতে গাড়ী নিয়ে বেড়িয়ে পড়েছি।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাছুমা আরেফিন জানান, ছয়টি ইউনিয়নে গরীর ও দুস্থ পরিবারের মাঝে তিন হাজার ২শ পিস কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। নতুন করে আবারও চাহিদা পাঠানো হযেছে। শীতের তীব্রতা বাড়ার সাথে সাথে এ গুলো গরীব,অসহায় ও দুস্থ পরিবারের মাঝে বিতরণ করা হবে।
রাজারহাট কৃষি আবহাওয়া পর্যবেক্ষনাগারের আবহাওয়া পর্যবেক্ষক আনোয়ার হোসেন জানান, সোমবার বিকাল ৩ টায় সর্ব নি¤œ তাপমাত্রা ১৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দেশের বিভিন্ন স্থানে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির কারণে ঠান্ডার প্রভাব বাড়তে পারে।
আব্দুল আজিজ মজনু/আর বি

Comments are closed.