rockland bd

কালিহাতীতে লতিফ সিদ্দিকীর গাড়ীবহরে হামলার প্রতিবাদে অবস্থান কর্মসূচি

0

টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি
সোমবার, বাংলাটুডে টোয়েন্টিফোরডটকম
টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর গাড়িবহরে হামলার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল সকালে কালিহাতী উপজেলার গোহালিয়াবাড়ি ইউনিয়নের সরাতৈলে এ ঘটনা ঘটে। হামলায় তার চারটি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে এবং অন্তত ২০ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে লতিফ সিদ্দিকী অভিযোগ করেছেন।
এ ঘটনার প্রতিবাদে লতিফ সিদ্দিকী টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক ও জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে অবস্থান ধর্মঘটে বসেছেন। গতকাল বেলা সোয়া ২টা থেকে তিনি এই অবস্থান ধর্মঘট শুরু করেন।
সেখানে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আমি আজ সকালে কালিহাতী উপজেলার গোহালিয়াবাড়ি ইউনিয়নে আমার নির্বাচনী কাজে যাই। প্রথমত সরাতৈল এবং বল্লভবাড়ির মাঝামাঝি এলাকায় আমাদের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করা হয়। পরে আমরা নির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী বল্লভবাড়িতে মহির উদ্দিন তালুকদারের বাড়িতে যাই। সেখানে গোহালিয়াবাড়ি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মহির উদ্দিন তালুকদারের সাথে কথা বলার সময় আমাদের ওপর আবার হামলা চালানো হয়। হামলাকারীরা লাঠিসোটা দিয়ে ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে অন্তত চারটি গাড়ি ভাঙচুর করে। এতে আহত হন অন্তত ২০ জন নেতাকর্মী। এই হামলায় নেতৃত্ব দেন গোহালিয়াবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান হযরত আলী তালুকদার।
লতিফ সিদ্দিকী অভিযোগ করে বলেন, হযরত আলী তালুকদার স্থানীয় এমপির (হাছান ইমাম খান সোহেল হাজারী) চেলা। গোহালিয়াবাড়িতে হযরত আলীর একটি বালুমহাল আছে। সে লুটপাট করে বালু তোলে। মানুষ সেটা পছন্দ করে না এবং বাধা দেয়। সরকারি কর্মকর্তারাও বাধা দিয়েছেন। কিন্তু তারপরও সংসদ সদস্যের সহযোগিতায় সে এটা করে যাচ্ছে। আমি বিজয়ী হলে ওইখানে তার ব্যবসা বন্ধ হয়ে যাবে। এ কারণেই সে তার লোকজন নিয়ে আমাদের ওপর হামলা করেছে। আমি হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। সেইসাথে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছ থেকে শান্তিপূর্ণ পরিবেশের নিশ্চয়তা না পাওয়া পর্যন্ত আমি এখানে অবস্থান ধর্মঘট চালিয়ে যাব।
অবস্থান ধর্মঘটে লতিফ সিদ্দিকীর সাথে কালিহাতীর বাংড়া ইউপি চেয়ারম্যান হাসমত আলীসহ তার বেশকিছু নেতাকর্মী রয়েছেন। এ হামলার ঘটনা লতিফ সিদ্দিকী বিচারের দাবিতে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে অবস্থান করছেন। লতিফ সিদ্দিকীর অবস্থানের ঘটনা শুনে জেলা প্রশাসক ও রিটারিং অফিসার শহিদুল ইসলাম ও টাঙ্গাইল পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় ঘটনাস্থলে গেলে লতিফ সিদ্দিকী বলেন, হামলাকারীদের গ্রেফতার ও কালিহাতী থানা ওসিকে প্রত্যাহার করলে অবস্থান কর্মসুচি প্রত্যাহার করবেন। ওসিকে প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত অবস্থান কর্মসূচি চলবে বলে তিনি জানান। পরে লতিফ সিদ্দিকী জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন।

হাফিজুর রহমান/আর বি

Comments are closed.