rockland bd

‘নৌকাই পারে দেশের উন্নয়ন ও শান্তি দিতে’

0

ফরিদপুর প্রিতিনিধি
শনিবার, বাংলাটুডে টোয়েন্টিফোর
একাদশ সংসদ নির্বাচনে ফরিদপুর সদর আসনের পৌর এলাকার দুইটি জনসভায় স্থানীয় সরকার মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, বাংলাদেশের ভাগ্য উন্নয়নে ও দেশের মানুষের শাস্তির প্রতীক হলো নৌকা। এই নৌকা প্রতীকই পারে দেশের উন্নয়নের সর্বচ্চ জায়গায় নিতে। এই জন্য আগামীতে সকলকে নৌকায় ভোট দিতে হবে।
ফরিদপুর শহরে বুনিয়াদী স্কুল মাঠে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা নূর ইসলাম মোল্লার সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোশাররফ হোসেন অঙ্গিকার করে বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে ফরিদপুর বিভাগ হবে, সিটি করপোরেশন হবে, উচ্চতর শিক্ষা ব্যবস্থার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় হবে।
তিনি বলেন, আমি আপনাদের এমপি থাকা অবস্থায় গত ১০ বছর ফরিদপুরবাসী শান্তিতে ঘুমাতে পেরেছে, কোনো হত্যা রাজনীতি আওয়ামী লীগ করে না।  তিনি উল্লেখ করে বলেন, গত ১১ ডিসেম্বর ফরিদপুরের গোলডাঙ্গীতে আমাদের আওয়ামী লীগের নেতাকে হত্যা করেছে বিএনপির কর্মীরা। তিনি বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় আসলে কেউ শান্তিতে ব্যবসা বাণিজ্য করতে পারবে না। মানুষ শান্তিতে থাকবে না । এই কারনেই নৌকায় ভোট দিলে আমরা সকলেই শান্তিতে থাকতে পাবো।
কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি আরিফুর রহমান দোলন বলেন, ৩০তারিখ সানাদিন নৌকা মার্কায় ভোট দিন। নৌকায় ভোট দিলে আপনার শান্তিতে থাকতে পারবেন। দেশের উন্নয়ন হবে। তিনি বিএনপি’র প্রার্থীর সমালোচনা করে বলেন, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ এর সময় ফরিদপুর সন্ত্রাসের নগরীতে পরিনত করেছিলেন। আর এইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন ক্ষমতায় আসার পর ফরিদপুর থেকে সন্ত্রাস পালিয়ে গেছে। আপনারা শান্তিতে থাকতে পারছেন। ফরিদপুরকে নগরে পরিনত করেছে। আর সেই জন্য আগামী ৩০ তারিখে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে খন্দকার মোশাররফ হোসেনকে জয়যুক্ত করুন। তিনি নির্বাচিত হলে আবারও দেশের শক্তিশালী মন্ত্রি হবেন। তিনি মিন্ত্রী হলে আপনারা শান্তিতে থাকতে পারবেন। ফরিদপুরে উন্নয়ন হবে।
অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম খন্দকার লেভী, সাধারন সম্পাদক চৌধুরী বরকত ইবনে সালাম, আওয়ামী লীগ নেতা আক্কাস হোসেন, হযরত আলী পাট্টাদার প্রমুখ।
এর পরে খন্দকার মোশাররফ হোসেন শোভারামপুর বাজারে নির্বাচনী সভায় বক্তব্য রাখেন ।

কে এম রুবেল/আর বি

Comments are closed.