rockland bd

পুষ্টিহীনতায় ইয়েমেনে ৮৫ হাজার শিশুর প্রাণহানি

0

বিদেশ ডেস্ক, বাংলা টুডে টোয়েন্টিফোর:

যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেনের শিশুরা চরম পুষ্টিহীনতায় ভুগছে। ছবি : সংগৃহীত

যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেনে চলমান যুদ্ধে চরম পুষ্টিহীনতায় ভুগে পাঁচ বছরের কম বয়সী প্রায় ৮৫ হাজার শিশুর মৃত্যু ঘটেছে।

আন্তর্জাতিক সাহায্য সংস্থা সেভ দি চিলড্রেনের বরাত দিয়ে আল জাজিরা ও বিবিসি এই খবর দিয়েছে। উল্লেখ্য, গত মাসেই জাতিসংঘ এই মর্মে হুঁশিয়ার করে দিয়েছিল যে, যুদ্ধ বিদ্ধস্ত দেশটিতে প্রায় ১ কোটি ৪০ লাখ লোক দুর্ভিক্ষে পড়ার প্রবল আশঙ্কায় রয়েছেন।

ইউনিসেফ জানিয়েছে যে, গত তিন বছরের গৃহযুদ্ধের কারণে দেশটির স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলির অর্ধেক মাত্র কাজ করতে পারছে। এই যুদ্ধে প্রাণ হারিয়েছেন প্রায় ৭ হাজার লোক আর আহত হয়েছন প্রায় ১১ হাজার লোক। ইরান সমর্থিত শিয়া হুথি বিদ্রোহীরা দেশটির প্রেসিডেন্ট মনসুর হাদিকে উৎখাৎ করলে সউদি আরবের নেতৃত্বাধীন কোয়ালিশন বিদ্রোহীদের উপর বিমান হামলা শুরু করে ২০১৫ সালে; তখন থেকেই ইয়েমেনের এই সংঘাত চলেই আসছে। যুক্তিরাষ্ট্র এই সংঘাতে সউদি আরবকে সমর্থন করছে।

এর আগে জাতিসংঘ এই বলে হঁশিয়ার করে দিয়েছিল যে, দেশটি যে খাদ্যসঙ্কটের মুখোমুখি হচ্ছে তাতে ভয়াবহ এক দুর্ভিক্ষের আলামত স্পষ্ট। শত বছরেও এমন দুর্ভিক্ষ মানব ইতিহাসে হয়নি বলে জাতিসংঘ জানায়।

সাহায্য সংস্থা ইউনিসেফ জানায়, একদিকে গৃহযুদ্ধ এবং অন্যদিকে সউদি নেতৃত্বাধীন কোয়ালিশনের আরোপ করা হোদেইদা বন্দরে অবরোধ আরোপ ইয়েমেন পরিস্থিতিকে আরো জটিল করে তোলে। এই বন্দর দিয়ে দেশটির ৯০ শতাংশ খাদ্য আমদানী হয়ে থাকে। এই অবরোধের ফলে একদিকে বেড়ে গেছে খাদ্যের দাম অন্য দিকে পড়ে গেছে ইয়েমেনী মুদ্যার মূল্য। ফলে লক্ষ লক্ষ মানুষের অস্তিত্ব বিপন্ন হয়ে পড়েছে।

আরব বিশ্বের গরিব দেশ ইয়েমেনের বর্তমান সঙ্কটের সূচনা হয় ২০১১ সালে পরিবর্তনের জোয়ার-খ্যাত আরব বসন্তের সময়। সে সময় আন্দোলনের চাপে দীর্ঘদিনের প্রেসিন্ডেট আলী আব্দুল্লাহ সালিহ তার ডেপুটি মনসুর হাদির কাছে ক্ষতা হস্তান্তর করতে বাধ্য হন। পরে মনসুর হাদি দেশের সমস্যা সামলাতে ব্যর্থ হলে শিয়া হুথি বিদ্রোহীরা দেশের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার চেষ্টা করে। তারা রাজধানী সানা দখল করলে প্রেসিডেন্ট হাদি পালিয়ে যান। শিয়া বিদ্রোহীরা পায় ইরানের সমর্থন। এই পর্যায়ে সউদী আরব ও অপর ৮টি ক্ষুদ্র সুন্নী দেশ বিতাড়িত প্রেসিডেন্টের সমর্থকদের সমর্থনে ইয়েমেনে বিমান হামলা শুরু করে। সউদি এই কোয়ালিশনের প্রতি রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, বৃটেন ও ফ্রান্সের সমর্থন।

আলী সরকার/আর বি

Comments are closed.