rockland bd

ভৈরবকে জেলা ঘোষণা ও বাইপাস রেললাইন বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন

0

ভৈরবকে জেলা ঘোষণা ও বাইপাস রেললাইন বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন

ভৈরব প্রতিনিধি, বাংলাটুডে টোয়েন্টিফোর-
দেশের ক্রান্তিকালে যিনি শক্ত হাতে আওয়ামীলীগের হাল ধরেছিলেন, বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ট সহচর প্রয়াত রাষ্ট্রপতি মো: জিল্লুর রহমানে একমাত্র স্বপ্ন ভৈরব জেলা হওয়ার চলমান কার্যক্রম আজ অদৃশ্য এক ক্ষমতার কাছে ঢুকরে ঢুকরে কেঁদে মরছে।
২০০৯ সালে দেশের ১৯তম রাষ্ট্রপতি ভৈরবকে জেলার ঘোষণা করার ১০ বছর অতিক্রম করলেও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তরফ থেকে চূড়ান্ত ঘোষণার অপেক্ষায় ছিল ভৈরব-কুলিয়ারচরবাসী।
প্রধানমন্ত্রীর চূড়ান্ত ঘোষণার মাধ্যমে ভৈরববাসীর প্রাণের জেলা বাস্তবায়নের দাবি পূরণ ও জিল্লুর রহমানের শেষ ইচ্ছার প্রতিফলন দেখতে চায় এ অঞ্চলের মানুষজন।
১০ বছর অপেক্ষার পরও এখনো ভৈরবকে জেলায় রুপান্তরিত না করায় চরম ক্ষোভ নিয়েই এবার মাঠে নেমেছে ভৈরবের সর্বস্তরের মানুষজন।
ভৈরবকে জেলা বাস্তবায়ন ও বাইপাস রেললাইন বন্ধের দাবিতে আজ শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে ১১টা পর্যন্ত ভৈরব রেলওয়ে জংশন স্টেশনে শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করেন ভৈরববাসী।
প্রয়াত রাষ্ট্রপতি আলহাজ্ব মো: জিল্লুর রহমানের শেষ ইচ্ছা ভৈরব জেলা বাস্তবায়নসহ ঢাকা টু কিশোরগঞ্জ রুটে ভৈরবের উপর দিয়ে বাইপাস বন্ধের দাবিতে বিভিন্ন শ্রেণিপেশার সহস্রাধিক মানুষ বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে মানববন্ধনে অংশ নেন।
মানববন্ধনে বক্তারা, ভৈরব জেলা বাস্তবায়ন, ২টি আন্তনগর ট্রেনের যাত্র বিরতি ও বাইপাস রেললাইন বন্ধসহ তিনদফা দাবি আদায়ের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম দেন।
আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে আন্দোলনকারীদের দাবি পুরণ না হলে আগামী মঙ্গলবার ভৈরবে সর্বাত্মক অর্ধদিবস হরতাল পালনের ঘোষণা দেন তারা।
উল্লেখ্য, গত ৯ অক্টোবর রাষ্ট্রপতি মো: আব্দুল হামিদ কিশোরগঞ্জের গুরুদয়াল সরকারি কলেজ মাঠে আয়োজিত নাগরিক সংবর্ধনায় ঢাকা-কিশোরগঞ্জ রুটের বিরতিহীন ট্রেন চলাচলের জন্য ভৈরবের উপর দিয়ে বাইপাস রেললাইন করার ঘোষণা করেন।
রাষ্ট্রপতির ঘোষণার পরপরই রেল কর্র্তৃপক্ষ বাইপাস বাস্তবায়নের জন্য জায়গা নির্ধারণ করে কনসালটেন্টের মাধ্যমে সার্ভের কাজ শেষ করেন।
এতে সর্বস্তরের ভৈরববাসীর মাঝে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, ভৈরব চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল্লাহ আল মামুন, ভৈরব শহর আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি ইফতেখার হোসেন বেনু।
অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, যমুনা টিভি ও যুগান্তরের ভৈরব প্রতিনিধি আসাদুজ্জামান ফারুক, সাপ্তাহিক অবলম্বন পত্রিকার সম্পাদক তাজুল ইসলাম তাজ ভৈরবী, নিরাপদ সড়ক চাই ভৈরব শাখার সাধারণ সম্পাদক মো: আলাল উদ্দিন, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ভৈরব উপজেলা শাখার সভাপতি ও বাংলা টিভির ভৈরব প্রতিনিধি এম.আর সোহেল, ভৈরব উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক এন.কে সোহেল, পৌর ৫নং ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক জামাল হোসেন, ভৈরব মাদক বিরোধী আন্দোলনের আহবায়ক ইমতিয়াজ আহমেদ কাজল, ভৈরব জেলা বাস্তবায়ন অনলাইন ফোরামের সক্রিয় মেম্বার মাহফুজুর রহমান, রাসেল আহমেদ, মেহেদী হাসান রিয়াদ, রাফিজুল হাসান সানজিব, রাহিম আহমেদ, জন ও শিশু কল্যাণ সংগঠনের সাবেক সভাপতি আকরাম হোসেন প্রমুখ।

এম.আর রুবেল/আর এইচ

Comments are closed.