rockland bd

ধর্ম অবমাননায় আসিয়া বিবিকে খালাস দেয়ায় পাকিস্তানজুড়ে বিক্ষোভ

0

ধর্ম অবমাননায় আসিয়া বিবিকে খালাস দেয়ায় পাকিস্তানজুড়ে বিক্ষোভ

আসিয়া বিবি

বিদেশ, বাংলাটুডে টোয়েন্টিফোর-
ইসলাম অবমাননার দায়ে অভিযুক্ত হয়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত খৃষ্টান ধর্মাবলম্বী আসিয়া বিবির মুক্তির নির্দেশের বিরুদ্ধে পাকিস্তানজুড়ে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট বুধবারের রায়ে বলেছে, আসিয়া বিবির বিরুদ্ধে অন্য কোনো মামলা না থাকলে তিনি মুক্ত হয়ে বেরিয়ে যেতে পারেন।
এ মামলায় বিচারক বলেছেন, বাদীপক্ষ সন্দেহাতীতভাবে অভিযোগ প্রমাণ করতে পারে নি। তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এ মামলা করা হয়েছে। এক্ষেত্রে যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয় নি।
রায় দেয়ার সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন না আসিয়া বিবি। রায় শোনার পর আসিয়া বিবির আইনজীবী সাইফুল মুলুক বলেছেন, এই রায় আমাদের দেখিয়ে দিয়েছে যে পাকিস্তানে দরিদ্র, সংখ্যালঘু ও সমাজের নিচু স্তরের মানুষরাও সুবিচার পায়।
ওই রায়ের প্রতিক্রিয়ায় ইসলামাবাদসহ পাকিস্তানজুড়ে অসন্তোষ ছড়িয়ে পড়েছে। মুসলমানরা ইসলামাবাদ, করাচি ও রাওয়ালপিন্ডিসহ দেশটির বড় শহরগুলোর প্রধান সড়ক অবরোধ করতে শুরু করেছে। বাড়ানো হয়েছে সুপ্রিম কোর্টের নিরাপত্তা।
ইসলামাবাদ পুলিশ জানিয়েছে, ফয়জাবাদ থেকে কাশ্মীরের হাইওয়ে বিক্ষোভকারীরা অবরোধ করে রেখেছে।
নিরাপত্তার স্বার্থে সেসব অঞ্চল এড়িয়ে চলার আহ্বান জানানো হয়েছে পুলিশের পক্ষ থেকে। রাজধানীতে আধা-সামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে ও গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলোতে প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।
করাচিরও বেশিরভাগ এলাকায় বিক্ষোভের কারণে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। সেখানে রাস্তা অবরোধ করে আগুন জ্বালানোর খবর পাওয়া গেছে। কয়েকটি দলের হুমকির মুখে পাঞ্জাব সরকার সেখানে ১৪৪ ধারা জারি করেছে।
ইসলাম অবমাননার দায়ে দীর্ঘ ৮ বছর ধরে জেলে আটক রয়েছে আসিয়া। আসিয়া বিবি প্রথম থেকেই নিজেকে নির্দোষ দাবি করে আসছে।
দেশটির মধ্যাঞ্চলীয় ইথান ওয়ালি গ্রামের আসিয়া বিবিকে মহানবী হজরত মোহাম্মদ (সা.)–কে নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে মৃত্যুদণ্ডের শাস্তি দেওয়া হয়।
২০০৯ সালে একই পাত্রের পানি খাওয়া নিয়ে তর্কাতর্কির সময় তিনি ধর্ম অবমাননা করেছেন বলে দুই মুসলিম নারী তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। ২০১০ সালের ডিসেম্বরে বিচারিক আদালতে তাঁকে মৃত্যুদণ্ডের শাস্তি দেওয়া হয়।-এক্সপ্রেস ট্রিবিউন, ডন

আর এইচ

Comments are closed.