rockland bd

বর্বর ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে প্রাণ গেল শিশুসহ ৬ ফিলিস্তিনির

0

বিদেশ, ডেস্ক প্রতিবেদন-


নিজ ভূমিতে ফেরার অধিকারের দাবিতে গাজা উপত্যকায় বিক্ষোভরত ফিলিস্তিনিদের ওপর আবার গুলি চালিয়েছে ইসরায়েলি সেনাবাহিনী। শুক্রবার (২৮ সেপ্টেম্বর) ইসরায়েলি বাহিনীর গুলিতে দুই শিশুসহ ছয় ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে নিহত এক ফিলিস্তিনি কিশোর। ছবি: পিবিএস


গাজার দক্ষিণাঞ্চলীয় খান ইউনিসের পূর্বাঞ্চলীয় এলাকায় মাথায় গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয় ১২ বছর বয়সী নাসের মুসাবিহ। অন্যদিকে, মধ্যাঞ্চলের জেলা আল-বুরেইজে ইসরায়েলি সেনাসদস্যদের গুলিতে মোহাম্মদ নায়েফ আল হায়ুম নামের ১৪ বছরের এক কিশোর নিহত হয়। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আশরাফ আল কাদরা বার্তা সংস্থা এএফপিকে এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

ওই মুখপাত্র আরও বলেন, এ ছাড়া ওই সীমান্তে আরও চারজনকে গুলি করে হত্যা করা হয়। আহত ২১০ জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। গত ৩০ মার্চ থেকে প্রতিবাদ শুরু হওয়ার পর অন্যতম রক্তাক্ত দিন এটি।

ইসরায়েলি সেনারা দাবি করেন, সীমান্তে প্রায় ২০ হাজার বিক্ষোভকারী জড়ো হয়েছিলেন। তাঁরা দাবি করেন, বিক্ষোভকারীরা ‘গ্রেনেড ও বিস্ফোরক’ ছুড়েছিল। তবে নিহত ফিলিস্তিনিদের বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি ইসরায়েলি সেনাবাহিনী।

চলতি বছর পাঁচ মাসেরও বেশি সময় ধরে নিজ ভূমিতে ফেরার অধিকারের দাবিতে গাজা উপত্যকায় বিক্ষোভ করছেন ফিলিস্তিনিরা। ৩০ মার্চ শুরু হওয়া বিক্ষোভে এখন পর্যন্ত মোট ১৯৩ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন হাজার হাজার। এ সময়ে ফিলিস্তিনি স্নাইপারের গুলিতে এক ইসরায়েলি সেনা নিহত হন।

অন্যদিকে, দখলদার ইসরায়েল পশ্চিম তীরের একটি গ্রামের ফিলিস্তিনি বাসিন্দাদের পয়লা অক্টোবারের মধ্যে তাদের বাড়িঘর ভেঙ্গে ফেলতে নির্দেশ দিয়েছে। গত রবিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে বলা হয়, খান আল আহমারের বাসিন্দারা আজ (রবিবার) এক নোটিস পেয়েছেন যে ২০১৮ সালের পয়লা অক্টোবারের মধ্যে তাদেরকে তাদের বাড়িঘর ভেঙ্গে ফেলতে হবে।

এছাড়া জেরুসালেম ইস্যুতে ফিলিস্তিন-ইসরায়েল সংঘাত নিরসনে আগামী দুই থেকে তিন মাসের মধ্যেই দ্বি-রাষ্ট্র সমাধানের ভিত্তিতে নতুন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের ঘোষণা দিয়েছেন ট্রাম্প। যদিও তার এ বক্টব্যের বিরোধিতা করে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস জাতিসংঘের ভাষনে বলেছেন, জেরুসালেম বিক্রির জিনিষ নয় যে তা নিয়ে দরকষাকষি করা হবে।

ফিলিস্তিনের ভূমি দখল করে ১৯৪৮ সালের ১৫ মে প্রতিষ্ঠিত হয় ইসরায়েল নামের রাষ্ট্র। ১৯৭৬ সালের ৩০ মার্চ ভূমি থেকে উচ্ছেদের প্রতিবাদ করতে গিয়ে ৬ নিরস্ত্র প্রতিবাদী ইসরায়েলি বাহিনীর হাতে নিহত হয়েছিলেন। পরের বছর থেকেই ৩০ মার্চ থেকে ১৫ মে পর্যন্ত পরবর্তী ছয় সপ্তাহকে ভূমি দিবস বা ‘ল্যান্ড ডে’ হিসেবে পালন করেন ফিলিস্তিনিরা। জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে মার্কিন ঘোষণা এবং বিক্ষোভে ব্যাপক প্রাণহানির জের ধরে চলতি বছর পাঁচ মাসেরও বেশি সময় ধরে চলছে ‘গ্রেট মার্চ অব রিটার্ন’ নামের এই কর্মসূচি।

বাংলাটুডে২৪/আর এইচ

Comments are closed.